মৌলভীবাজার রাজনীতি সিলেট

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসীন আলী নিজ জেলায় আগমনে নিশ্চুপ জেলা আ’লীগ

এম শাহজাহান আহমদ,মৌলভীবাজার: সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসীন আলী এম,পি নিজ জেলায় মন্ত্রী হিসেবে প্রথম পদার্পন উপলক্ষে জেলা আওয়ামীলীগ কোন সংবর্ধনা অনুষ্ঠান কিংবা তার সম্মানে কোন তোরণ নির্মাণ করেনি। জেলা আ’লীগের গ্র“পিংয়ের কারনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে অনুষ্ঠান
আয়োজন থেকে বিরত রয়েছেন বলে অনেকে জানিয়েছেন। জানা যায়, স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে আওয়ামীলীগ তিন বার দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পায়। কিন্তু এই প্রথম আওয়ামীলীগ সরকারের ক্ষমতাসীনকালীন সময়ে সৈয়দ মহসীন আলী এম,পি মন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন। ফলে আওয়ামীলীগ ঘরনার সাধারণ নেতা-কর্মীর মাঝে উৎসব আমেজ বিরাজ করছে। কিন্তু জেলা আ’লীগের প্রথম সারির নেতৃবৃন্দ মন্ত্রীর আগমনে কোন অনুষ্ঠানের আয়োজন না করায় সাধারণ নেতা-কর্মীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। জেলা আ’লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মসুদ আহমদ বলেন সব ধরণের সংকীর্ণতার উর্ধ্বে উঠে প্রজাতন্ত্রের মন্ত্রীকে সম্মান জানানোর পাশাপাশি জনকল্যাণে কার্যক্রম পরিচালনায় তাকে সহযোগিতা করা উচিত। দলীয় একটি সুত্র জানায় জেলা আ’লীগের সাবেক সভাপতি মন্ত্রী সৈয়দ মহসীন আলী এম,পি ও বর্তমান সভাপতি উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ ও সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদের মধ্যে কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে গ্র“পিংয়ের জন্ম নেয়। গত ২০০৬ সালের মাঝামাঝি সময় থেকে এই অবস্থা চলে আসছে। ফলে জেলাবাসীর গর্ব ও মুক্তিযুদ্ধের অহংকার সৈয়দ মহসীন আলীকে আ’লীগ মৌলভীবাজার জেলার প্রথম মন্ত্রী করার পরও জেলা আ’লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ অনেকের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনা নেই। অপরদিকে গত মঙ্গলবা জেলার প্রবেশ দ্বার শ্রীমঙ্গলে (জেলা আ’লীগ
সভাপতি উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদের নির্বাচনি এলাকায়) উপজেলা আ’লীগ সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর সম্মানে কোন অনুষ্ঠান আয়োজন না করলেও নৌকা সমর্থক গোষ্ঠীর ব্যানারে বিশাল গণ সংবর্ধনা দিয়েছে। জানা গেছে উপজেলা আ’লীগের কার্যনির্বহী কমিটির নেতৃবৃন্দ উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ অনুসারী হওয়ায় তারা অনুষ্ঠানে যোগ দেয়নি। সমাজকল্যান মন্ত্রী হওয়ায় শুরু থেকেই নাখোশ ছিল জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ সমর্থিত শ্রীমঙ্গল উপজেলা আওয়ামীলীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দরা। এমনকি সংবর্ধনা সভায় উপজেলা আওয়ামীলীগ থেকে কোন ফুলের তোড়াও প্রদান করা হয়নি। জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদ বলেন, সৈয়দ মহসীন আলী এম,পিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমাজকল্যাণ মন্ত্রী করায় আমরা আনন্দিত। জেলা আ’লীগের পক্ষ থেকে কোন তোরণ নির্মাণ বা সংবর্ধনা সভার আয়োজন না করা সম্পর্কে বলেন ইতিপুর্বে জেলা আ’লীগ সভাপতি উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ চিফ হুইপ হয়েছেন তাকেও সংবর্ধনা দেওয়া হয়নি। সৈয়দ মহসীন আলী এম,পি (বর্তমান মন্ত্রী) ১৯৯৮ সালে প্রবীণ নেতা আজিজুর রহমান কেন্দ্রীয় আ’লীরে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ হলেও কখনও জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে কোন সংবর্ধনা দেওয়া হয়নি। এই সব কারনে প্রশ্নের উদ্রেক হতে পারে জেলা আ’লীগ সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর সম্মানে সংবর্ধনা সভার আয়োজন করেনি।