অপরাধ জাতীয় ঢাকা

সাংবাদিক আফতাব হত্যা মামলায় ৫ আসামি রিমান্ডে

আদালত প্রতিবেদক: একুশে পদকপ্রাপ্ত ফটো সাংবাদিক আফতাব আহমেদ হত্যা মামলায় ৫ আসামিকে ৫ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। আসামিরা হলেন, নিহত আফতাবের গাড়ি চালক হুমায়ুন কবির মোল্লা, বেলাল হোসেন কিসলু, সবুজ খান, রাজু মুন্সি ও হাবিব। এরআগে মঙ্গলবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাব-৩ এর এসআই আশিক ইকবাল আসামিদের ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে ১০ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। শুনানী শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মিজানুর রহমান আসামিদের রিমান্ডে নেওয়ার এই আদেশ দেন। এর আগে রাজধানীর সায়েদাবাদ থেকে রোববার সন্ধ্যায় হুমায়ুন কবিরকে আটক করে র‌্যাব-৩। তার দেওয়া তথ্যমতে রাজধানীর আগারগাঁও থেকে হাবিব এবং এ হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারী কিসলুকে আটক করে। কিসলু ও হাবিবের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার ভোরে গাজীপুরের একটি মেস বাড়ি থেকে সবুজ ও রাজুকে আটক করে র‌্যাব। রিমান্ড শুনানীতে আদালাতকে বলা হয়, এই আসামিরা গত ২৫ ডিসেম্বর রাজধানীর পশ্চিম রামপুরার ওয়াপদা রোডের বাসায় প্রবীণ সাংবাদিক আফতাব আহমেদকে হত্যা করে। পূর্বপরিকল্পিতভাবে গাড়ি চালক হুমায়ুন কবিরের সহযোগিতায় সাংবাদিক আফতাব আহমদকে হত্যা করে আসামিরা। হত্যাকান্ডের আগে সাংবাদিক আফতাব আহমদ বাসা ভাড়া দিতে রামপুরার ওয়াপদা রোডের বাসায় ‘টু-লেট’ টানান। এরপর হুমায়ুন তার সহযোগীদের বিষয়টি জানান। ঘটনার আগের দিন ২৪ ডিসেম্বর সকালে হুমায়ুনের সহযোগী কিছলু, হাবিবসহ অন্যরা রামপুরায় এসে আফতাবের সঙ্গে দেখা করে বাসা ভাড়া নেওয়ার ইচ্ছার কথা জানান। এরপর তারা বাসা থেকে বের হয়ে গিয়ে সন্ধ্যায় আবার এসে হুমায়ুনের সঙ্গে বাসার ভিতরে প্রবেশ করে আসামিরা আঘাত ও শ্বাসরোধ করে আফতাব আহমদকে হত্যা করেন। এই হত্যাকান্ডের সঙ্গে আরও কেউ জড়িত আছে কিনা সে বিষয়ে তথ্য উদঘটন করতে আসামিদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন। সাংবাদিক আফতাব স্বাধীনতাযুদ্ধে বিশেষ অবদানের জন্য একুশে পদক পেয়েছিলেন। এছাড়া ৭৪’র দুর্ভিক্ষের সময় তিনি কুড়িগ্রামের চিলমারীতে গিয়ে তার ক্যামেরায় বাসন্তির জাল পরা ছবি তুলেছিলেন। সেই ছবি পত্রিকায় প্রকাশের পর সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল।