বিনোদন

গাইলেন পিয়া রবীন্দ্রসংগীত

 শানজানা জামান, ঢাকা, ৬ জানুয়ারি :  মডেল জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়া, হাঁটতেন যিনি র‌্যাম্পে। আলো-আঁধারির এক মায়াজালের ভূবন সেটি। ক’জনই বা রাখে তার খবর।

কিন্তু সেই মায়াবী দুনিয়া থেকে বেরিয়ে পিয়া যখন এলেন রূপালী পর্দায় তখন সাধারণের আর চিনতে বাকি থাকলো না টক-মিষ্টি-ঝাল চেহারার এই সুন্দরীকে। এরপর কেটে গেছে দু’বছর। যিনি র‌্যাম্পে হেঁটেছেন, ক্যামেরার সামনে পোজ দিয়েছেন, অভিনয়ও করেছেন।

লোকে এখন তাকে চেনে মডেল-অভিনেত্রী হিসেবে। এত গুণ যার তাকে গুরুত্ব দেয় না কে? এমন যদি হয় তা হলে তো সেটা মহা অন্যায়। না প্রিয় পাঠক আমরা কোনভাবেই সেই অন্যায় করতে চাই না। মিডিয়া সংশ্লিষ্টদের মতে বেশ গুরুত্বই পাচ্ছেন এই অভিনেত্রী।

সম্প্রতি তিনি আরও একটি কান্ড ঘটিয়েছেন। রবিবার রাতে একটি মিউজিক ক্যাফেতে গান গেয়েছেন। তাও আবার রবীন্দ্রসংগীত। কাল রাতে বাসায় ফিরেই তিনি তা শেয়ার করেন ফেইস বুকে। নিজের আইডি থেকে স্ট্যাটাস দেন এ বিষয়ে। তাতে তিনি লেখেন, ‘আমি আজ গান গেয়েছি। লাইভ।এরপরে একটি স্মাইল চিহ্ন দিয়ে লেখেন, হিহিহি হিহিহি। থ্যাঙ্কস টু তানভীর ভাই অ্যান্ড ওয়াসিম আংকেল, আমাকে অনুপ্রাণিত করার জন্য।’ পিয়া জানান তিনি ক্যাফেতে গেয়েছেন ‘আমি চিনি গো চিনি তোমারে ওগো বিদেশিনী’ রবীন্দ্র সংগীতটি।

এ বিষয়ে রাইজিং বিডি থেকে জানতে চাওয়া হলে পিয়া জানান, তিনি ছোটবেলায় রবীন্দ্র সঙ্গীত শিখতেন। সেই পূর্বাভিজ্ঞতা থেকেই গান গাওয়ার সাহস করেছেন।

পিয়া আরও জানান, “উত্তরায় টুটুল ভাই (এস আই টুটুল)-এর মিউজিক্যাল রেস্টুরেন্ট ফায়ার অন আইসে গিযেছিলেন গতরাতে। সঙ্গে ছিলো তার দুই বন্ধু। সে সময় পুরো রেস্টুরেন্টে সাত-আট জন ওয়েটার ছিলো শুধু। আর ছিলো রেস্টুরেন্টটির রেগুলার মিউজিক টিম। হঠাৎ-ই পিয়ার বন্ধুরা তাকে গান করার জন্য ধরে বসে। তারা তাকে সরাসরি একটি রবীন্দ্র সংগীত গাওয়ার জন্য অনুরোধ করে।

তিনি বলেন, “তখন ওই মিউজিক টিমের সঙ্গেই ‘আমি চিনি গো চিনি তোমারে ..’ রবীন্দ্র সংগীতটি পরিবেশন করি। যেহেতু, আমার বন্ধুরা আর ওয়েটাররা ছাড়া আর কেউ ছিলো না, তাই সাহস করে গেয়েছি। হা হা হা ।” আর কয়েক মুহূর্তের জন্যে হয়ে ওঠেন ছোটবেলার সেই রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী পিয়া।

এই অভিনেত্রী কিছুদিন আগে দেশের বাইরে প্রথম কোন চলচ্চিত্রের শুটিং করেছেন। ‘প্রবাসীর প্রেম’ শিরোনামে ছবিটিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন নীরব। চলচ্চিত্রে কাজ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি নিয়মিত চলচ্চিত্রে কাজ করতে চাই। প্রতিদিনই নাচের ক্লাস করছি। অভিনয়ের প্রতি মনোযোগী হয়েছি। কারণ এ মাধ্যমে কাজ করলে দীর্ঘদিন দর্শকের মনে থাকা যায়।”

তিনি যে শুধু অভিনয়ই করেন তা কিন্তু নয়। তিনি দেশ ও দেশের মানুষ নিয়েও ভাবেন। আর ভাবেন বলেই দেশের মানুষদের জন্য কিছু করতেও চান। সেই আশা থেকেই প্রতিষ্ঠা করেছেন ‘উই ফাউন্ডেশন’। এই অর্গানাইজেশনটি থেকে পথশিশুদের জন্য একটি স্কুল করেছেন তিনি। পাশাপাশি দুস্থ মহিলাদের স্বাবলম্বী করতে এটি বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানটিরও বয়স এবারে এক বছর হতে চললো।

বর্তমান কাজ সম্পর্কে পিয়া জানিয়েছেন,  দেশের পরিস্থিতির কারণে সবকিছু থমকে আছে। খুব শিগগিরই ‘দ্য স্টোরি অফ সামারা’, ‘প্রবাসীর প্রেম’ ও ‘আমি শুধু চেয়েছি তোমায়’ ছবিগুলোর কাজ শেষ করবেন। এছাড়াও তিনি শেষ করেছেন ‘গ্যাংস্টার রিটার্নস’ ছবির শুটিং। এর ডাবিং শুরু হবে শিগগিরই। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন অপূর্ব।