অপরাধ পঞ্চগড় রংপুর

পঞ্চগড়ে সৌদি প্রবাসী মহিলাকে বিয়ের পর হত্যার চেষ্টা: থানায় মামলা

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় প্রতিনিধি : মিথ্যা পরিচয়ে বিয়ে করে সৌদি আরবে থাকা এক মহিলাকে ফুসলিয়ে পঞ্চগড়ে এনে নগদ টাকা ও স্বর্নালংকার হাতিয়ে নিয়ে হত্যা চেষ্টা চালায় দুর্বৃত্তরা। মহিলার চিৎকার শুনে এলাকার মানুষ জড়ো হলে মিথ্যা পরিচয়ে বিয়ে করা স্বামী মোঃ আজাদ ও অন্যরা পালিয়ে যায়। পরদিন সদর থানায় ভুয়া স্বামী আজাদ সহ অজ্ঞাত ৪ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন মহিলা। পুলিশ ও নির্যাতিতা মহিলা জানায়, নোয়াখালীর বাসিন্দা নার্গিস আক্তার সাথী কাজের বুয়া হিসেবে সৌদি আরবে অবস্থানকালীন মোবাইলে পঞ্চগড় সদর উপজেলার নারায়নপুর পন্ডিতপাড়ার আঃ রহমানের ছেলে আজাদের সাথে পরিচয় হয়। সৌদি প্রবাসীর সাথে পরিচয়ের পর প্রেমে হাবুডুবু খেয়ে কৌশলে সাথীকে দেশে আসতে বাধ্য করে আজাদ। গত মাসে সাথীকে মিথ্যা পরিচয়ের ভিত্তিতে বিয়ে করে আজাদ। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন হোটেলে ও অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর ন্যায় আচরন করে আজাদ। স্বামীর ভিটায় আসতে চাইলে গত মঙ্গলবার রাতে সাথীকে পঞ্চগড়ে এনে একটি নির্জন লিচুবাগানে নিয়ে যায়। সাথীর নগদ ৭৪ হাজার টাকা, স্বর্নের আংটি ও ভিসা হাতিয়ে নিয়ে আজাদ ও অপর তিনজন সহযোগী তাকে হত্যার প্রস্তুতি নেয়। এসময় সাথীর চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এলে ভূয়া স্বামী আজাদসহ দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবু দাউদ প্রধান মহিলাকে উদ্ধার করে সদর থানা পুলিশের নিকট সোপর্দ করেন। বুধবার দুপুরে স্থানীয়দের সহযোগীতা নিয়ে নির্যাতিত মহিলা বাদী হয়ে আজাদসহ অজ্ঞাত ৪ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। সদর থানা পুলিশ সূত্র জানায়, বিগত ৬ মাস পূর্বে আজাদকে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে আটক করলে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতারা তাকে জামিনে ছাড়িয়ে নিয়ে যান।