অর্থ ও বাণিজ্য

নতুন বছরে সমঝোতার প্রত্যাশা ব্যবসায়ীদের

নিয়াজ খান
ঢাকা, ১ জানুয়ারি : রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে দেশের অর্থনীতি বিদায়ী বছরে ভালো যায়নি। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শেষের কয়েকটি মাস অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড প্রায় স্থবির হয়ে পড়ে।

তবে নতুন বছরে রাজনৈতিক সমঝোতার মাধ্যমে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি হবে বলে প্রত্যাশা করছেন দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী নেতারা। রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা অর্থনীতিকে দুরবস্থা থেকে কাঙ্ক্ষিত অবস্থানে পৌঁছাতে পারবে বলে মনে করছেন তারা।

ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহ্‌মদ রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘বিদায়ী বছরে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতায় ব্যবসায়ীদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে বিদেশি ক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলো। এ পরিস্থিতি আমরা চাই না। আজ নতুন বছরে আশা করছি, এ রাজনৈতিক সংকটের শিগগিরই সমাধান হবে। ব্যবসাবান্ধব রাজনীতি দেশে প্রতিষ্ঠিত হবে।’

নতুন বছর ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য ভালো যাবে বলেও আশা করছেন দেশের এ শীর্ষ ব্যবসায়ী নেতা।
নতুন বছরের প্রত্যাশা নিয়ে কথা হয় তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদীর সঙ্গে। তিনি বলেন, বহির্বিশ্বে পোশাকশিল্প খাতে যে ইমেজ সংকট সৃষ্টি হয়েছে, নতুন বছরে সে সংকট থেকে উত্তরণে ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে। তার চেয়ে বড় বিষয়টি হচ্ছে বর্তমানের সহিংস রাজনীতি পরিহার করতে হবে। ধ্বংসাত্মক পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের পথ সরকারকেই বের করতে হবে।

অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে শেষ হলো বিদায়ী বছর। নতুন বছরে এ অবস্থা থেকে মুক্তির প্রত্যাশা করে ঢাকা চেম্বারের সদ্য সাবেক সভাপতি মো. সবুর খান বলেন, ‘বছরের শুরুতেই আবারও অবরোধের কারণে অনিশ্চয়তায় পড়তে হচ্ছে। এতে ব্যবসায়ীদের হতাশা আরো বাড়ছে। তার পরও প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে একটি সমঝোতা আশা করছি। চলমান রাজনৈতিক সংকট সমাধান রাজনীতিকদেরই করতে হবে।’