অপরাধ বরিশাল ভোলা

জামাইকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

ভোলা প্রতিনিধি :  ভোলার চরফ্যাশনে জামাতা লাশ হাসপাতাল রেখে পালিয়েছে শ্বশুর বাড়ির লোকজন। বৃহস্পতিবার সকালে মৃত
লোকমানের (২৮) লাশ শশীভূষণ থানা পুলিশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। মৃত লোকমানের পরিবার পরিকল্পিত হত্যার পর মুখে
বিষ ঢেলে মৃত্যু নিশ্চিত করার অভিযোগ আনলেও মৃত্যুর বিষয়টি পরিস্কার নয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার সকালে টমটম চালক জামাল মোল্লাসহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন লোকমানকে মৃত অবস্থায় চরফ্যাশন হাসপাতালের জরুরী বিভাগে রেখে পালিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আনিচুর রহমান জানান, নিহতের লাশ রেখে স্বজনরা পালিয়ে গেছে। জরুরী বিভাগে আনার আগেই লাকমানের মৃত্যু হয়। তিনি আরো জানান, নিহতের গলা, বুক, কোমর এবং পায়ে  আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মুখের মধ্যে কীটনাশকও রয়েছে। ধারনা করা  হচ্ছে তাকে টিপিয়ে হত্যার পর মুখে বিষ ঢেলে দেয়া হয়েছে।নিহত লোকমানের পরিবার জানায়, চরফ্যাশন বাজারের ঢাকা স্টোর নামের একটি মুদি দোকানের কর্মচারী ছিলেন তিনি। লোকমান লালমোহন উপজেলার ধলিগৌর নগর গ্রামের মৃত মজিবল হকের ছেলে। ৭ মাস আগে চরফ্যাশনের রসুলপুর ইউনিয়নের ফকিরাহাট এলাকার রফিকুল ইসলামের মেয়ে ঝুমুরকে বিয়ে করে সে। মঙ্গলবার দোকান থেকে ছুটি নিয়ে শ্বশুর বাড়ি যায়। পরিকল্পিত হত্যার পর বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় শ্বশুর বাড়ির লোকজন লোকমানের মৃত দেহ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ফেলে রেখে গা-ঢাকা দেয় বলে লোকমানের পরিবার অভিযোগ করে।শশীভূষণ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম জানান, লোকমানের মৃত্যুর কারণ পরিস্কার নয়। তবে তাকে পিটিয়ে হত্যার পর মুখে বিষ ঢেলে দেয়ার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। তিনি আরো জানান, ময়না তদন্ত হওয়ার পর বিষয়টি পরিস্কার হবে। নিহতের লাশ ভোলা সদর হাসপাতালের লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে।