ঢাকা বিনোদন সাক্ষাতকার

খোলামেলা হতে পিয়া আমানের আপত্তি

 বিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকা, ৬ ডিসেম্বর:  মডেল, অভিনেত্রী পিয়া আমান সম্প্রতি তার প্রথম সিনেমা ‘অদৃশ্য শত্রু’র শুটিং শেষ করেছেন। টানা পাঁচমাসের শুটিং শেষে এখন পরিকল্পনা করছেন আগামীর জন্য। তবে এর ফাঁকে দু’টি টিভি প্রযোজনায় কাজও করছেন।

এই শিল্পীর জন্মদিন ছিলো ৩ ডিসেম্বর। পারিবারিকভাবে দিনটি পালন করেছেন তিনি। তার জন্মদিন উদযাপন, সিনেমায় কাজের অভিজ্ঞতা এবং মিডিয়া নিয়ে পরিকল্পনার কথা বলেছেন
হটনিউজ২৪বিডি.কম,র বিনোদন বিভাগের সাথে।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: জন্মদিন উদযাপন কেমন হল?

পিয়া আমান: সকালে আমার স্কুলের বন্ধুরা এসেছিল বাসায়। তাদের নিয়ে অনেক মজা করেছি। আমরা ৪ বোন। বোনদের মধ্যে আমি তৃতীয়। পরিবারের সবাইকে নিয়ে জন্মদিন পালন করেছি। এবারে মায়ের কারণেই সারাদিন বাড়িতেই ছিলাম। অনেকই ফেসবুকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে। মিডিয়ার সহকর্মিরা, শুভাকাঙ্খি, বন্ধুরা ফোন করেছেন। সবমিলিয়ে দারুণ এক জন্মদিন পালন করেছি এবারে।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: বর্তমান কি নিয়ে ব্যস্ত আছেন?

পিয়া আমান: রাজনৈতিক পরিস্থিতির জন্য সবকিছুই থমকে আছে। টানা ৫ মাস সিনেমার শুটিং করে এখন কিছুটা বিশ্রামে। তবে এর মধ্যে মানিক মানবিক পরিচালিত টিভি প্রযোজনা ‘কাম টু দ্য পয়েন্ট’-এ কাজ করেছি। এছাড়া ‘জলের টান’ শিরোনামের আরো একটি টিভি নাটক করেছি। এর শুটিং হয়েছে কক্সবাজারে। আমার সাথে আছেন ইন্তেখাব দিনার। এছাড়া ৭ ডিসেম্বর থেকে সুস্ময় সুমনের ধারাবাহিক ‘মাপা হাসি চাপা কান্না’র শুটিং শুরু করার কথা। উত্তরায় এর শুটিং হবে।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: প্রথম সিনেমার শুটিং শেষ করা কথা বলছিলেন। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে চাই।

পিয়া আমান: আমার প্রথম ছবি ‘অদৃশ্য শত্রু’। সোহেল রানা প্রযোজিত সিনেমাটিতে আমার নায়ক জায়েদ খান। এতে সিনেমাটিতে অভিনয়ের পাশাপাশি পরিচালনা করেছেন মাসরুর পারভেজ। এই সিনেমার আরেক পরিচালক তার ছোট ভাই আকিব পারভেজ। সিনেমাটিতে আরো অভিনয় করেছেন সোহেল রানা, সুচরিতা, রুবেলসহ অনেকে।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: প্রথম সিনেমায় কাজের অভিজ্ঞতা কেমন হল?

পিয়া আমান: প্রথমে তো বিশ্বাসই হয়নি যে আমি সিনেমায় কাজ করবো। কাজ শুরুর পরে ইউনিটের সবাই আমাকে অনেক হেল্প করেছে। মনে হয়েছে খেলতে খেলতে ছবির শুটিং শেষ করলাম। খুব কমফোর্টলি কাজটি করেছি। এই সিনেমায় আমার বাবা-মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সোহেল রানা ও সুচরিতা। অন্য দুই কোআর্টিস্ট হলেন জায়েদ খান ও মাসরুর পারভেজ। সিনেমার গল্পটিও গতানুনিক ধারার বাইরে। সব সিনেমাতেই নায়কে যেভাবে দেখানো হয় এখানে সেই ধারার ব্যতিক্রম দেখা যাবে। গল্পটির শেষটাই সবচাইতে আকর্ষণীয়।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: প্রথম সিনেমা থেকে কি ধরণের প্রাপ্তি আশা করছেন?

পিয়া আমান: কিছুই না। প্রথম কাজ হিসেবে দর্শক আমাকে কিভাবে নেবে এটাই দেখার মত একমাত্র বিষয়। তারা যদি আমাকে পছন্দ করে, সিনেমা যদি তাদের ভালো লাগে তাহলে আমি ধন্য হয়ে যাবো। তবে আমার কেরিয়ারে একটি ইতিবাচক টার্ন নিচ্ছে বলে আমার ধারনা।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: এই ধারনা কিভাবে হল?

পিয়া আমান: শুটিং শেষ হবার পরে অনেক অফার আসছে। অনেকেই আমাকে নিয়ে আগ্রহী এখন। তবে আমি সবধরণের কাজ করতে চাই না। এখন আমাদের দেশে অনেকেই পশ্চিমা ধাচের ফ্যশন ফলো করছে। খোলমেলা পোশাক আমার ভালো লাগে না। আমি খুব ওপেন হতে চাই না। শরীর দেখিয়ে নায়িকা হবার ইচ্ছা আমার নেই।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: তাহলে সিনেমা নিয়ে আপনার পরিকল্পনা কি?

পিয়া আমান: স্ক্রিনে খুব বেশি খোলামেলা হতে চাই না। রেমুনেশন নিয়েও কোনো উচ্চাকাঙ্খা নেই আমার। সামাজিক, রুচিসম্মত ও শালীনতা মধ্যে থেকে কাজ করে যেতে চাই। এজন্য আমাকে যদি কম কাজ করতে হয় তাও আপত্তি নেই।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: আপনার মিডিয়ায় শুরুটা কিভাবে?

পিয়া আমান: আমার প্রথম কাজ তন্ময় তানসেনের ধারাবাহিক নাটক ‘ভ্যাকেশস ইলেভেন’। এতে আরো অভিনয় করেছিলো শশী, শুভ, ইরেশ যাকেরসহ অনেকে। এটা ছিলো ২০১২ সালের কথা। এরপর আমি এই পরিচালকের সঙ্গে ‘অতঃপর প্রেম তারপর ভালোবাসা’ নাটকে কাজ করেছি। সেই থেকে মডেলিং, নাটক করছি নিয়মিতই।

হটনিউজ২৪বিডি.কম: সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

পিয়া আমান: আপনাকে এবং হটনিউজ২৪বিডি.কম-এর পাঠকদেরও ধন্যবাদ।