অপরাধ খুলনা জাতীয় মাগুরা

গ্রামীণ বিরোধ নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় ছাত্রলীগ কর্মীসহ ২ নিহত,আহত ২০,ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

মাগুরা  সদর উপজেলার চাউলিয়া ইউনিয়নের মালিক গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’দল গ্রামবাসির সংঘর্ষে ফরিদ হোসেন (২২) নামে এক ছাত্রলীগ কর্মী ও আবু নইম মোল্লা (২৬) নামে অপর এক দোকান কর্মচারি নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ২০ জন। এ ঘটনায় পুলিশ স্থানীয় চাউলিয়া ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে।শুক্রবার প্রায় সারারাত ধরে এ সংঘর্ষ চলে।  এসময় হামলা পাণ্টা হামলায় আহত হয়ে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ১১ টার দিকে ফরিদ ও  ঢাকায় নেওয়ার পথে আজ শনিবার সকালে নইম মোল্যা মারা যান।
আহতদের মধ্যে ৭ জনকে মাগুরা  সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বাকিরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন। সংঘর্ষের সময় উভয় পক্ষের কমপক্ষে ৮০ টি বাড়ি ও ২০টি দোকান ঘর ভাংচুর লুটপাটের ঘটনা ঘটে। পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিতে ২৫ রাউন্ড গুলি নিক্ষেপ করেছে। সংঘর্ষে এক পক্ষে নেতৃত্বে দেয়ার অভিযোগে স্থানীয় ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
এলাকাবাসি জানান- আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মালিকগ্রামের ওসমান মন্ডল ও ওহিদ মেম্বরের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। ইতিপূর্বে এ বিরোধ নিয়ে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনায় হতাহতসহ বাড়ি ঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। পূর্ব বিরোধ নিয়ে সম্প্রতি প্রতিপক্ষের হামলায় বন্যা নামে ওহিদ মন্ডলের এক সমর্থকের শিশুকন্যা নিহত হয়। যা নিয়ে নতুন করে উত্তেজনা তৈরী হলে শুক্রবার সন্ধ্যায় দুপক্ষের মধ্যে আবার এ সংঘর্ষ ও হতাহতের ঘটনা ঘটে।
ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ ২৫ রাউন্ড গুলির কথা স্বীকার করেছে।