অপরাধ জাতীয় রাজনীতি

মুন্সিগঞ্জে হেফাজতের মিছিলে পুলিশের বেধড়ক লাঠিচার্জ: আহত ২০, গ্রেফতার ৪

Munshiganj 5মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি:
মুন্সিগঞ্জে হেফাজতের মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ আহত ২০। এ সময় ৪জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। হেফাজতে ইসলামের ব্যানারে দেশব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে শুক্রবার জুমার নামাজ বাদ নয়াগাঁও বড় মসজিদের সামনে থেকে স্থানীয় মুসল্লি ও হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা মুহাম্মদ (সা:) এর কটুক্তিকারীদের শাস্তির দাবীতে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি প্রথমে পুলিশী বাঁধায় আটকে গেলেও কিছুক্ষণ পর মিছিল করতে দেয়া হয়। মিছিলকারীরা মোক্তারপুর পুরাতন বাসস্ট্যান্ড পার হয়ে জেলা পরিষদের সামনে যেতে না যেতেই পিছন থেকে পুলিশ এটাক করে। পুলিশের দুটি গ্র“প হয়ে একটি সামনে থেকে অপরটি পিছন থেকে বেধড়ক লাঠিপেটা করলে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে এলাপাথারি ছুটাছুটি করে হেফাজতের নেতাকর্মীরা। এক পর্যায় হেফাজতের ৪জন কর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো জাকির (২৩), মুদাচ্ছির (২৪), মনিরুজ্জামান (২৩), জোবায়ের (২০)। এদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে পুলিশ। পরে নিজাম মেম্বারকে গ্রেফতার করার চেষ্টা করার খবর ছড়িয়ে পড়ে। উত্তেজিত বিএনপি নেতাকর্মীরা বলতে থাকে একটা পুলিশও ফেরত দেয়া হবে না। এই ঘটনার খবর জেলা বিএনপি সভাপতি আব্দুল হাই জানতে পেরে ঘটনাস্থলে যান এবং উত্তেজিত নেতাকর্মীদের শান্ত করার চেষ্টা ককরেন। পৌছানোর পূর্বেই নিজাম মেম্বারকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। পরে পুলিশ মুক্তারপুর থেকে সরে আসতে বাধ্য হয়।
এ বিষয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: শহীদুল ইসলাম জানান, পুলিশ শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে বাধা প্রদান করে। পরে পুলিশের বেরীকেড উপেক্ষা করে মিছিল নিয়ে যেতে চাইলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। তিনি আরো জানান, পুলিশ-প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই হেফাজতে ইসলামের কর্মীরা পুরাতন ফেরীঘাট সংলগ্ন জামে মসজিদ থেকে জুমা নামাজের পর বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চায়।
শহর উপকন্ঠের মুক্তারপুর নৌ-ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো: সেলিম হেফাজতের ৪ কর্মীকে গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন- লাঠিচার্জ করে হেফাজতের কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়েছে। তবে এ মূহুর্তে তাদের পরিচয় জানাতে পারেননি তিনি।