অপরাধ ঢাকা রাজনীতি

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গে বহিষ্কার হচ্ছেন কাজী জাফর

 নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা, ২৪ নভেম্বর:  দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে জাতীয় পার্টি থেকে বহিষ্কার হচ্ছেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর আহমদ। রোববার যে কোনো সময় তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে বলে জাতীয় পার্টি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এদিকে কাজী জাফর আহমদের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে নিজেই দল গঠন করছেন জাতীয় পার্টি থেকে বিতাড়িত হওয়া সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। তার নতুন এই দলের নাম ‘জাতীয়তাবাদী জাতীয় পার্টি’। নাম শুনে অনেকেই আওয়ামী লীগের ঘোর বিরোধী এই নেতার দলটিকে বিএনপির ছায়া দল হিসেবেই ভাবছেন। শীঘ্রই তিনি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন দলের ঘোষণা করবেন বলে জানিয়েছে সূত্রটি।

প্রসঙ্গত, সর্বদলীয় সরকারে জাতীয় পার্টির যোগ দেয়া নিয়ে শনিবার সন্ধ্যায় এরশাদের কঠোর সমালোচনা করে বিবৃতি দেন কাজী জাফর। বিবৃতিতে তিনি বলেন, এরশাদ সর্বদলীয় সরকারে গিয়ে জাতির সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। নেতাকর্মীদের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবির আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ার জন্য আহ্বান জানান কাজী জাফর।

কাজী জাফর আহমদ’র বিবৃতির পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এরশাদ বলেন বিবৃতি দেওয়ার এখতিয়ার রাখেন না কাজী জাফর আহমদ। এই বিবৃতি দিয়ে তিনি দলের শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজ করেছেন।

সাবেক রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, জাতীয় পার্টি কখনই তত্ত্বাবধায়ক সরকার সমর্থন করেনি। কোন তত্ত্বাবধায়ক সরকারেই জাতীয় পার্টির সঙ্গে সঠিক ব্যবহার করেনি। তাই আমরা সবসময়ই এর বিরোধীতা করে আসছি।

এরশাদের সাথে কাজী জাফরের মতানোইক্যের ব্যাপারে জাতীয় পার্টি সূত্র জানিয়েছে, কাজী জাফর আশা করেছিলেন তাকে সর্বদলীয় সরকারের মন্ত্রীসভায় স্থান দিবেন এরশাদ। মন্ত্রী কিংবা মন্ত্রী পদ মর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হতে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে লবিংও করেছিলেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী তার উত্তরে বলেছেন, আপনার পার্টির চেয়ারম্যান আপনার নাম না দিলে আমাদের করার কিছুই নেই। আর এতেই দল এবং দলের প্রধান এরশাদের উপর ক্ষেপে যান কাজী জাফর আহমদ।

শোনা যাচ্ছে কাজী জাফরের বহিষ্কারাদেশের সাথে কপাল পুড়বে জাতীয় পার্টিতে তার অনুসারী আরও বেশ কিছু নেতা-নেত্রীর। তাদের মধ্যে অন্যতম জাতীয় শ্রমিক পার্টির নেত্রী আনোয়ারা বেগম। তাকে বহিষ্কার করা না হলেও সরিয়ে দেয়া হবে শ্রমিক পার্টির প্রধান পদ থেকে।