আন্তর্জাতিক প্রধান খবর রাজনীতি

আসন্ন নির্বাচনে নাশকতার আশঙ্কা মনমোহনের

 বিনয় সিকদার, কলকাতা, ২৪ নভেম্বর:  ভারতে আসন্ন লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনের সময় সন্ত্রাসবাদী নাশকতা হতে পারে বলে আশঙ্কা করলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।

শনিবার পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেলদের সম্মেলনে আসন্ন লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনের সময় সন্ত্রাসবাদী নাশকতা আশঙ্কার কথা জানান প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ। কয়েকটি রাজ্যে সাম্প্রদায়িক ঘটনা উল্লেখ করার মতো বেড়েছে বলে জানিয়েও তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। ডিজিপি ও ইনসপেক্টর জেনারেলদের সামনে মনমোহনের ভাষণে উঠে এসেছে উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগর ও সংলগ্ন এলাকার সাম্প্রতিক সাম্প্রদায়িক হিংসার প্রসঙ্গ।

কোনওরকম সংশয়, দ্বিধা ও ভীতিতে প্রভাবিত না হয়ে চরমতম কঠোরতার সঙ্গে তা মোকাবিলার ডাক দেন প্রধানমন্ত্রী। পুলিশকর্তাদের উদ্দেশ্যে মনমোহনের বার্তা, তুচ্ছ বা স্থানীয় কোনও ইস্যু থেকে কায়েমি স্বার্থান্বেষী চক্র যাতে ফায়দা তুলতে না পারে, সেটা সুনিশ্চিত করতে হবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থাগুলিকে। কায়েমি চক্র সামান্য ইস্যুকে কাজে লাগিয়ে সাম্প্রদায়িক ভাবাবেগ চাগিয়ে তোলার চেষ্টা করতে পারে। চলতি বছরে কয়েকটি রাজ্যে সাম্প্রদায়িক হিংসা বেশ মাথাচাড়া দিয়েছে। আমরা এমনটা চলতে দিতে পারি না। কোথাও হিংসা, গণ্ডগোল মাথাচাড়া দেওয়া মাত্র তাকে চরম কঠোর মনোভাব দেখিয়ে মোকাবিলা করতে হবে। এক্ষেত্রে কোনও পক্ষপাতিত্ব, সংস্কার বা ভীতির কাছে মাথা নোয়ানো চলবে না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আসন্ন লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচন বানচাল করার লক্ষ্যে জঙ্গি গোষ্ঠীগুলি হামলা চালাবে, এমন পূর্ণ সম্ভাবনা রয়েছে। তাই নিরাপত্তা বাহিনীকে সজাগ থাকতে হবে। কলকাতা, ২৪ নভেম্বর: ভারতে আসন্ন লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনের সময় সন্ত্রাসবাদী নাশকতা হতে পারে বলে আশঙ্কা করলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।

শনিবার পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেলদের সম্মেলনে আসন্ন লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনের সময় সন্ত্রাসবাদী নাশকতা আশঙ্কার কথা জানান প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ। কয়েকটি রাজ্যে সাম্প্রদায়িক ঘটনা উল্লেখ করার মতো বেড়েছে বলে জানিয়েও তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। ডিজিপি ও ইনসপেক্টর জেনারেলদের সামনে মনমোহনের ভাষণে উঠে এসেছে উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগর ও সংলগ্ন এলাকার সাম্প্রতিক সাম্প্রদায়িক হিংসার প্রসঙ্গ।

কোনওরকম সংশয়, দ্বিধা ও ভীতিতে প্রভাবিত না হয়ে চরমতম কঠোরতার সঙ্গে তা মোকাবিলার ডাক দেন প্রধানমন্ত্রী। পুলিশকর্তাদের উদ্দেশ্যে মনমোহনের বার্তা, তুচ্ছ বা স্থানীয় কোনও ইস্যু থেকে কায়েমি স্বার্থান্বেষী চক্র যাতে ফায়দা তুলতে না পারে, সেটা সুনিশ্চিত করতে হবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থাগুলিকে। কায়েমি চক্র সামান্য ইস্যুকে কাজে লাগিয়ে সাম্প্রদায়িক ভাবাবেগ চাগিয়ে তোলার চেষ্টা করতে পারে। চলতি বছরে কয়েকটি রাজ্যে সাম্প্রদায়িক হিংসা বেশ মাথাচাড়া দিয়েছে। আমরা এমনটা চলতে দিতে পারি না। কোথাও হিংসা, গণ্ডগোল মাথাচাড়া দেওয়া মাত্র তাকে চরম কঠোর মনোভাব দেখিয়ে মোকাবিলা করতে হবে। এক্ষেত্রে কোনও পক্ষপাতিত্ব, সংস্কার বা ভীতির কাছে মাথা নোয়ানো চলবে না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আসন্ন লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচন বানচাল করার লক্ষ্যে জঙ্গি গোষ্ঠীগুলি হামলা চালাবে, এমন পূর্ণ সম্ভাবনা রয়েছে। তাই নিরাপত্তা বাহিনীকে সজাগ থাকতে হবে।