খুলনা জাতীয়

সকল দলের অংশগ্রহণে অর্থবহ নির্বাচন চায় আমেরিকা-মার্কিন রাস্ট্রদূত

 এম এইচ হোসেন, খুলনা থেকে :  বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনা বলেছেন, আমেরিকা চায় বাংলাদেশে সকল দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে একটি অর্থবহ নির্বাচন হোক। গণতন্ত্র অক্ষুন্ন রাখার স্বার্থে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে অবশ্যই সংলাপ জরুরী। নির্বাচন সামনে রেখে বাংলাদেশ এখন চ্যালেঞ্জিং সময় পার করছে। সংঘাত, সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য কোন রাজনৈতিক দলের জন্য গ্রহণযোগ্য নয়। তবে স্বাধীন মত প্রকাশের অধিকার সকলের থাকা উচিত। আমেরিকা বাংলাদেশকে সুখি  ও সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে দেখতে চায়। নর্দান ইউনিভার্সিটি খুলনা ক্যাম্পাসে বৃহস্পতিবার বিকেলে আমেরিকান কর্ণার উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, এদেশে গার্মেন্টস শিল্পের ভবিষ্যত উজ্জল। এই শিল্পের পরিবেশ ক্রমান্বয়ে উন্নতির দিকে ধাবিত হবে। আমেরিকা কখনও রানা প্ল াজার মত অনাকাংখিত ঘটনার পুনরাবৃত্তি আশা করে না। বাংলাদেশের সাথে
সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলাই আমেরিকার নীতি। নর্দান ইউনিভাসির্টির ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবু ইউসুফের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ মনিরুজ্জামান মনি, সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের ভাইস চ্যান্সেলর ড, এম শামসুল হক, খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আব্দুল জলিল, জেলা পরিষদের প্রশাসক শেখ আব্দুর রশিদ। স্বাগত বক্তৃতা করেন নর্দান ইউনিভার্সিটি খুলনা ক্যাম্পাসের ইনচার্জ প্রফেসর ড. আনোয়ারুল করিম।মজিনা আরও বলেন, আমেরিকা কর্ণার বাংলাদেশের সাথে আমেরিকার সংযোগসুত্র হিসেবে কাজ করবে। এ কর্ণারের মাধ্যমে সকল পেশার মানুষ আমেরিকা সম্পর্কে তথ্য জানতে পারবে এবং যারা আমেরিকায় পড়তে চায়, তাদের আমেরিকায় যাবার পথ প্রশস্ত হবে। আমেরিকায় যে সংখ্যক বাংলাদেশী শিক্ষার্থী পড়াশুনা করছে আগামী দিনে তার চেয়ে দশ গুন শিক্ষার্থী বেশী পড়তে যাবে। ইতোমধ্যে গতবারের চেয়ে বর্তমান বছরে পনের ভাগ শিক্ষার্থী বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, আমেরিকার কর্ণার থেকে ব্যবসায়ী, সিভিল সোসাইটি, শিল্পী,ছাত্রসহ সকল পেশার মানুষ সুবিধা নিয়ে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার সুযোগ সৃষ্টি করবে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই ঢাকা,চট্টগ্রাম, সিলেট ও খুলনায় আমেরিকার কর্ণার খোলা হয়েছে এবং আগামীতে রাজশাহীতে খোলা হবে।