খুলনা জাতীয় যশোর রাজনীতি

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশায় মেজর বনি

 রিপন হোসেন, যশোর থেকে:  যশোরের ২টি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী  মেজর (অব:) আ ন ম মোস্তফা বনি এলাকাবাসীর প্রতি ভালবাসার প্রমাণ দিতে নিজেই নিজের হাত কেটে রক্তাক্ত করেছেন। তবে সামান্য কাটতে গিয়ে অনেক বেশি কেটে যাওয়ায় তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছে। তার সমর্থকরা এমনটিই জানিয়েছেন। তবে বনির ভাই দাবি করেছেন, অজ্ঞাত ৪ দুর্বৃত্ত ছুরি বা ধারালো কিছু দিয়ে পোচ দিয়ে চলে গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে যশোর বিমান বন্দর এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।মেজর বনির সমর্থকরা জানান, তিনি যশোর-৩ ও যশোর-৫ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশায় দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে জমা দিয়েছে। এ প্রক্রিয়া শেষ করে বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি বিমানযোগে যশোরে ফেরেন। বিমানবন্দর এলাকায় তার সমর্থকদের উদ্দেশে পথসভায় বক্তব্যদানকালে তিনি বলেন, “মণিরামপুরবাসীর জন্য আমি সব কিছু করতে পারি। নিরামপুরবাসীর জন্য রক্ত দিতেও প্রস্তুত।” এমন বক্তব্য দিতে দিতেই তিনি ব্লেড দিয়ে নিজের বাম হাত কেটে ফেলেন। এসময় রক্তপাত হলে তাকে নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে টানাটানি শুরু হয়ে যায়। পরে তাকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। হাতের কাটা স্থানে ৮/৯টি সেলাই দেয়া হয়েছে। মেজর বনির সমর্থক মণিরামপুরের নেহালপুর গ্রামের বাসিন্দা খন্দকার বিপ্ল ব হাসান জানান, মেজর বনি সাহেবকে অভ্যর্থনা জানাতে মণিরামপুর থেকে ৬০টি মোটরসাইকেল বহর নিয়ে তারা বিমান বন্দরে গিয়েছিলেন। বিমান বন্দরে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বক্তব্য রাখছিলেন। বক্তব্য দেয়ার সময় তিনি নিজেই ব্লেড দিয়ে নিজের হাতে কাটেন। রক্তপাত হলে তিনি বলেন, এই রক্ত মণিরামপুরবাসীর জন্য উৎসর্গ করলাম। তবে বেশি রক্তপাত হওয়ায় উপস্থিত নেতাকর্মীরা তাকে হাসপাতালে এনেছে।মোটরসাইকেল বহরে আসা সমর্থক খোরদেশ আলম জানান, ‘উনি (মেজর অব. বনি) নিজেই হাত কেটে রক্ত দেখাতে গিয়ে বেশি কেটে ফেলেছেন।’এ ব্যাপারে বক্তব্যের জন্য মেজর (অব.) বনির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার মোবাইল রিসিভ করেন তার ভাই রাজু। তিনি জানান, ‘ভাইয়া পথসভা বক্তব্য দেয়ার সময় হাত নাড়ছিলেন। এ সময় ২টিমোটরসাইকেলে ৪ জন অজ্ঞাত দুর্বৃত্ত ছুরি বা ধারালো কিছুদিয়ে পোচ দিয়ে চলে গেছে।’ মেজর বনিকে চাইলে তিনি বলেন, ভাইয়া অসুস্থ, কথা বলতে পারছেন না।