অপরাধ ঢাকা

তানভীরসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নিল আদালত

hallmark আদালত প্রতিবেদক:  হলমার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর আহমেদসহ পঁচিশ আসামির বিরুদ্ধে দুদকের দাখিল করা এগারটি অভিযোগপত্র আমলে নিয়েছে আদালত। আর মামলার পলাতক আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। আগামী ২৭ নভেম্বর তামিল প্রতিবেদনও আদালতে দাখিল করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিভাগীয় স্পেশাল জজ মো. জহুরুল হক বুধবার সন্ধ্যায় এ আদেশ দেন।গত ৭ অক্টোবর দুদক ঢাকার মহানগর হাকিম আদালতে এ অভিযোগপত্র দাখিল করেন। জামিনে থাকা হলমার্কের চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলাম আদালতে হাজিরা দেন। তার জামিনের মেয়াদ আগামী ২৭ তারিখ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। জেসমিনের জামিনের বৈধতা নিয়ে দুদকের করা রিট আবেদনটি হাইকোর্টে নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তার জামিনের মেয়াদ বহাল থাকছে।এ মামলায় হলমার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীরসহ সাত আসামি কারাগারে রয়েছেন। সোনালী ব্যাংকের প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয় আসামেিদর বিরুদ্ধে। আইন অনুযায়ী, পলাতক আসামিদের বিরুদ্ধে তামিল প্রতিবেদন দাখিলের পর আদালত অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য দিন ধার্য করবেন। অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে মূলত মামরার বিচারকাজ শুরু হবে।মামলার ২৫ আসামি হলেন হলমার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর মাহমুদ ওরফে তাফছীর, হলমার্কের চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলাম, তানভীরের ভায়রা তুষার আহমেদ, মো. শহিদুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম, তসলিম হাসান, মীর জাকারিয়া, মো. জিয়াউর রহমান, মো. জাহাঙ্গীর আলম, সাইফুল ইসলাম রাজা, মো. আবদুল মালেক ও মো. জামাল উদ্দিন সরকার। এ ছাড়া ব্যাংক কর্মকর্তারা হলেন সাবেক এমডি হুমায়ুন কবির, ডিএমডি মাইনুল হক, ডিএমডি আতিকুর রহমান, ডিজিএম শেখ আলতাফ হোসেন, ডিজিএম  মো. সফিজউদ্দিন আহমেদ, এজিএম মো. কামরুল  হোসেন খান, জিএম একেএম আজিজুর রহমান, এজিএম মো. সাইফুল হাসান, নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল মতিন এবং নির্বাহী কর্মকর্তা  মেহেরুন্নেসা মেরি, সোনালী ব্যাংকের জিএম ননী গোপাল নাথ, এজিএম এজাজ আহম্মেদ, জিএম মীর সহিদুর রহমান।