অপরাধ বরিশাল ভোলা স্বাস্থ্য

ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্পের নামে অর্থ বাণিজ্য , ডাক্তার আটক

Pic--(2)--12--11--13 ভোলা প্রতিনিধি:   ভোলার লালমোহনে কথিত ভূয়া মানবাধিকার সংস্থার নামে ফ্রি চিকিৎসার কথা বলে নতুন কৌশলে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার মঙ্গলসিকদার বাজার থেকে এরকম ফ্রি চিকিৎসা চলাকালে পুলিশ আটক করেছে ওই চিকিৎসা ক্যাম্পের কথিত ডাক্তারকে। এসময় ফ্রি ক্যাম্পের মূল উদ্যোক্তা সততা মানবাধিকার ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মীর্জা মোঃ মাহবুব আল হাসানকে আটক করেও ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, চলতি বছর লালমোহন উত্তর বাজারে কেন্দ্রীয় কার্যালয় ঠিকানা দিয়ে সততা মানবাধিকার ফাউন্ডেশন (সমাফ) নামের কথিত মানবাধিকার সংগঠনের পোষ্টার লাগানো হয় বাজারের বিভিন্ন স্থানে। ওই সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হলেন উত্তর বাজারের মীর্জা মোঃ মাহবুব আল হাসান। তবে এ সংস্থার কোন রেজিষ্ট্রেশন এখনো করতে পারেনি সংশ্লিষ্টরা। সম্প্রতি ওই কথিত মানবাধিকার ফাউন্ডেশন লালমোহনের বিভিন্ন ইউনিয়নে ফ্রি চিকিৎসা সেবা দিতে কার্যক্রম শুরু করে। ফ্রি চিকিৎসা দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট বাজারে মাইকিং করে ফ্রি চিকিৎসার জন্য প্রচার করা হয়। পরে ফ্রি চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের কাছ থেকে ৩০ টাকা করে টিকিট ফি আদায় করে তারা। তবে ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প পরিচালনা করতে হলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর অনুমোতি ও এমবিবিএস ডাক্তার দ্বারা চিকিৎসা দেয়ার নিয়ম থাকলেও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠানটি সম্পূর্ণ তার বিপরীত করেছে। অনুমোতি তো নেই বরং পল্লী চিকিৎসককে দিয়ে তারা এ ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প চালানো শুরু করে। গতকাল মঙ্গলবার ধলীগৌরনগর ইউনিয়নের মঙ্গলসিকদার বাজারে তারিন মেডিকেল হলে বসে ব্যানার লাগিয়ে তারা এ চিকিৎসা সেবার নামে ৩০ টাকা করে আদায় করতে থাকে রোগীদের কাছ থেকে। খবর পেয়ে পুলিশ ওই ফ্রি চিকিৎসা কেন্দ্রে হানা দিয়ে কথিত ডাক্তার মোঃ নুর নবীকে আটক করে। এসময় সততা মানবাধিকার ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মীর্জা মোঃ মাহবুব আল হাসানকে আটক করেও ছেড়ে দেয়া হয় বলে জানা গেছে। আটককৃত ডাঃ মোঃ নুর নবীর প্রেসক্রিপশনে তার অভিজ্ঞতা হিসেবে ডিপ্লোমা মেডিকেল প্রাকটিশনার-ডি.এম.এফ. (খুলনা), ও.টি.সি.ডি. (শিশু রোগ) ঢাকা, ফার্মাসিষ্ট মেডিসিন ঢাকা, জেনারেল সার্জারি এবং মহিলা ও শিশুরোগে অভিজ্ঞ-শিশু হাসপাতাল, ঢাকা উল্লেখ রয়েছে। এর আগেও তারা নাজিরপুরসহ বিভিন্ন বাজারে একই ধরণের ফ্রি ক্যাম্প এর নামে এ কার্যক্রম চালিয়েছে।

এ ব্যাপারে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ অমলেন্দু বিশ্বাস জানান, কোন ফ্রি চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প চালাতে হলে জেলা সিভিল সার্জন অথবা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার অনুমোতি লাগে। কিন্তু কোন অনুমোতি না নিয়ে ফার্মেসীতে বসে এধরণের ফ্রি চিকিৎসার নামে ব্যবসা করা অনিয়ম। তাই এ বিষয়ে থানাকে ব্যবস্থা নিতে বলেছে।

লালমোহন থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার মিজানুর রহমান জানান, মঙ্গলসিকদার বাজারে ফ্রি চিকিৎসা ক্যম্প থেকে ডাঃ নুর নবী নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। সে আসলে প্রকৃত ডাক্তার কি-না তা যাচাই করে দেখা হবে। আর কাউকে আটক করা হয়নি বলেও তিনি জানান।

এদিকে, লালমোহনে ভূয়া মানবাধিকার সংগঠন ও মানকাধিকার কর্মী পরিচয়ে প্রতারণামূলক কর্মকান্ড বেড়ে গেছে। এসব কর্মীরা আইডি কার্ড বহন করে প্রশাসনসহ বিভিন্ন অফিসে গিয়ে নিজেদের মানবাধিকার কর্মী বলে পরিচয় দিয়ে সুবিধা আদায়ের চেষ্টা করে। এছাড়া গ্রামগঞ্জে কোন ঘটনা ঘটলেই এরা দৌড়ে চলে যায়। কোন কোন ক্ষেত্রে অর্থও হাতিয়ে নিয়ে থাকে বলে অভিযোগ রয়েছে। হঠাৎ গজিয়ে ওঠা নিজেদের প্রতিষ্ঠিত এরকম মানবাধিকার সংগঠনের সদস্য করে টাকা আদায় করারও অভিযোগ রয়েছে।