জাতীয় ঢাকা রাজনীতি

স্থল সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক

xfminister-0020131112034657.jpg.pagespeed.ic.K8Y-RN6MYo কূটনৈতিক প্রতিবেদক, ঢাকা, ১২ নভেম্বর:  সোমবার সন্ধ্যায় নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. দীপু মনি ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সালমান খুরশিদের মধ্যে বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে। নয়াদিল্লির ওবেরয় হোটেলে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে বাংলাদেশের সঙ্গে স্থল সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নের বিষয়ে বাংলাদেশকে আবারও প্রতিশ্রুতি দিল ভারত। আর এ লক্ষ্যে বিলটি ভারতীয় পার্লামেন্টের লোকসভায় পাশ করাতে আগামী শীতকালীন অধিবেশনেই সেটি তোলা হবে বলে জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এতদিন বিলটি লোকসভায় তুলতে না পারার কারণও ব্যাখ্যা করেন তিনি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও নয়াদিল্লিস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন সূত্রে জানা যায়, গত গ্রীষ্ম ও বর্ষাকালীন অধিবেশনে স্থল সীমান্ত চুক্তি বিলটি তোলার কথা থাকলেও বিরোধিতার কারণে তা উত্থাপনই করা যায়নি। ছিটমহল বিনিময় ও সীমান্ত চিহ্নিতকরণের ক্ষেত্রে সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাবে বিরোধিতা করছে দেশটির বিরোধী দল বিজেপি এবং আঞ্চলিক দল আসাম গণপরিষদ ও পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেস। মেয়াদ শেষ হয়ে এলেও প্রতিবেশী ভারত প্রতিশ্রুত তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি ও স্থল সীমান্ত চুক্তির বাস্তবায়ন না করায় হতাশ হয়ে পড়ে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার। তাই অন্তত স্থল সীমান্ত চুক্তির বিষয়ে ভারতের বিরোধী দলকে রাজি করাতে গত জুলাইয়ে দীপু মনি নিজে নয়াদিল্লি গিয়ে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করেন। তারপরেও এ সংক্রান্ত বিলটি লোকসভায় তোলার সৌভাগ্য হয়নি সালমান খুরশিদের। আর এ নিয়েই উক্ত বৈঠকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

এসময় সালমান খুরশিদ দেপু মনিকে জানান, ভারতের ক্ষমতাসীন কংগ্রেস সরকার বন্ধু রাষ্ট্রের সঙ্গে এ চুক্তি বাস্তবায়নে যথেষ্ট আন্তরিক। এই ধারাবাহিকতায় আগামী শীতকালীন অধিবেশনে বিলটি আবারও উত্থাপন করে পাস করার চেষ্টা করা হবে। উল্লেখ্য, এশিয়া-ইউরোপ মিটিং (আসেম)’র মন্ত্রী পর্যায়ের ১১তম বৈঠকে অংশ নিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রী ভারত সফরে রয়েছেন। সেখানে তিনি ভারতসহ আরো ছয়টি দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নেবেন। বৈঠক শেষে মঙ্গলবার রাতে তিনি শ্রীলঙ্কার উদ্দেশ্যে দিল্লি ছাড়বেন।

বৈঠকে দুদেশের চলমান নানা বিষয়ও উঠে আসে। প্রাসঙ্গিকভাবে বাংলাদেশের নির্বাচন বিষয়ে জানতে বর্তমান সরকারের অবস্থান জানতে চান সালমান খুরশিদ। এসময় দীপু মনি সরকারের অবস্থান ব্যাখ্যা করে সংবিধানের বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী নির্বাচন হবে বলে জানান। দুদলের মধ্যে সংলাপের বিষয়েও তিনি প্রধানমন্ত্রীর বারবার আহ্বান করা এবং তাতে সাড়া না দিয়ে বিরোধী দলের নেতার অনড় অবস্থানের কথা জানান। একই সঙ্গে তাদের ডাকা হরতালের সহিংসতার চিত্রও তুলে ধরেন দীপু মনি।

সীমান্তে শান্তি বজায় রাখার বিষয়ে সীমান্ত এলাকায় জেলা প্রশাসকদের মধ্যে বৈঠক ইতিবচাক ভূমিকা রাখবে বলে তারা আশা প্রকাশ করেন।