অপরাধ জাতীয় রাজনীতি

১৮ দলের দ্বিতীয় দিনের হরতাল শুরু

hartal20131111064142.jpg.pagespeed.ce.a653zZuq7F নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা:  বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের ডাকা ৮৪ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন সোমবার সকাল থেকেই শুরু হয়েছে। এর আগে রোববার রাত হরতালে রাজধানীজুড়ে চলেছে ককটেল বিস্ফোরণের মহোৎসব। হরতাল সমর্থনে বের হওয়া মিছিল থেকে পাঁচ শিবিরকর্মীকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া গাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে আরও পাঁচজন আটক হয়েছেন। এছাড়াও কাঁঠালবাগানে ১৫৬টি তাজা হাতবোমাসহ গ্রেফতার হয়েছেন চার শিবিরকর্মী।

রোববার সারাদিন রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ ও ঝটিকা মিছিল করেছে হরতাল সমর্থকরা। সন্ধ্যা থেকে শুরু হয় পুলিশকে লক্ষ করে হরতাল সমর্থকদের ককটেল বিস্ফোরণ। পল্টন, কারওয়ান বাজার, কলাবাগান ও নাবিস্কো মোড়ে পুলিশকে লক্ষ করে অন্তত ৩০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কোথাও কোথাও ফাঁকা গুলি ছুড়েছে।

সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে পল্টন মোড়ে পুলিশকে লক্ষ করে দু’টি ককটেল ছোড়া হয়।

পল্টনে দায়িত্বরত এক পুলিশ সদস্য জানান, সন্ধ্যার দিকে পল্টন মোড়ে দায়িত্বরত অবস্থায় কে বা কারা তাদের লক্ষ করে পরপর দু’টি ককটেল নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়।

ককটেল দু’টি প্রেসক্লাবের দিক থেকে ছোড়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

এদিকে, কারওয়ান বাজার মোড়ে পুলিশের গাড়ির কাছেই পরপর ২০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে হরতাল সমর্থকরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে কারওয়ান বাজার মোড়ে বেসরকারি টেলিভিশন ‘ইটিভি’ ভবনের সামনে পুলিশের গাড়ির উপস্থিতিতেই এসব ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

তবে, এ ঘটনায়ও কাউকে আটক করার খবর পাওয়া যায়নি। এছাড়া কেউ আহত হয়েছে কিনা এ ব্যাপারেও কিছু জানা যায়নি।

এদিকে রাত সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর কলাবাগান থানা লক্ষ করে চারটি ককটেল নিক্ষেপ করেছে পিকেটাররা। ককটেলগুলো বিস্ফোরিত হলেও এতে হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

এ ঘটনার আগে কাঁঠালবাগানের একটি ফ্ল্যাট থেকে ১৫৬টি হাতবোমাসহ ৪ শিবিরকর্মীকে গ্রেফতার করে কলাবাগান থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।