৮ আশ্বিন, ১৪২৪, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, সকাল ৭:৫১
অর্থ ও বাণিজ্য, জাতীয়, ঢাকা, প্রধান খবর, রাজনীতি, সারাদেশ সকল সিটি কর্পোরেশনের হিসাব ও রাজস্ব ব্যবস্থাপনা ডিজিটালাইজ করা হবে -এলজিআরডি মন্ত্রী

সকল সিটি কর্পোরেশনের হিসাব ও রাজস্ব ব্যবস্থাপনা ডিজিটালাইজ করা হবে -এলজিআরডি মন্ত্রী

Post by: সম্পাদক on জুন ৮, ২০১৭ | ১০:৪৪ অপরাহ্ণ in অর্থ ও বাণিজ্য,জাতীয়,ঢাকা,প্রধান খবর,রাজনীতি,সারাদেশ

হটনিউজ ডেস্ক: স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, সিটি কর্পোরেশনসমূহের রাজস্ব আদায়ের অব্যবস্থাপনা দূর করতে ডিজিটালাইজেশনই একমাত্র পথ। হিসাব ও রাজস্ব ব্যবস্থাপনা অটোমেশন করা হলে অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতি ৭০-৮০% হ্রাস করা যাবে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে সকল সিটি কর্পোরেশনের হিসাব ও রাজস্ব ব্যবস্থাপনা ডিজিটালাইজড করা হবে।
মন্ত্রী আজ সচিবালয়স্থ স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলন কক্ষে পাইলটিং হিসাবে ঢাকা দক্ষিণ ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের হিসাব ও রাজস্ব ব্যবস্থাপনায় অটোমেশন কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন – স্থানীয় সরকার বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব বেগম নাসরিন আক্তার (অতিরিক্ত সচিব) এবং ঢাকা দক্ষিণ ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।
মন্ত্রী বলেন, এই অটোমেশন চালু হওয়ার ফলে রাজস্ব আদায়ের ব্যবস্থাটি হাতের নাগালে চলে আসল। রাজস্ব আদায়ে এর সুফল সবাই ভোগ করবে। বর্তমানে প্রচলিত ব্যবস্থায় সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভাসমূহ প্রায় সিংহভাগ রাজস্ব আদায় করতে পারে না। অটোমেশনের ফলে একটি নির্দিষ্ট ডাটাবেজের মাধ্যমে রাজস্ব দাতা ও রাজস্ব গ্রহীতা উভয়েই স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মধ্যে আসবে।
মন্ত্রী বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প ২০২১ ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের স্বপ্ন পূরণে এ অটোমেশন একটি বড় পদক্ষেপ। আমাদের সরকার ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণে বিশ^াসী। স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করতে হলে এর আর্থিক সক্ষমতা ও কর্মচঞ্চলতা বাড়াতে হবে। রাজস্ব আদায় ও হিসাব ব্যবস্থাপনার অটোমেশনের ফলে এলক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানসমূহ এক ধাপ এগিয়ে গেল। আমরা পর্যায়ক্রমে স্থানীয় সরকারের সকল প্রতিষ্ঠানকে অটোমেশনের আওতায় নিয়ে আসব।
প্রকল্প পরিচালক আব্দুল খালেক বলেন, এটি ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে একটি নতুন দিগন্তের সূচনা করবে। স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহে রাজস্ব ও হিসাব ব্যবস্থাপনায় অটোমেশন চালু হলে রাজস্ব আয় ৩ গুণ বৃদ্ধি পাবে। সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড্ হওয়ার কারণে হিসাব ব্যবস্থাপনা ও রাজস্ব আদায়ে সিস্টেমলস ৩ গুণ কমে যাবে। প্রতিষ্ঠানসমূহের আর্থিক কাঠামো রাতারাতি বদলে যাবে ও প্রতিষ্ঠাসমূহ আর্থিকভাবে অনেক সক্ষমতা অর্জন করবে।
উল্লেখ্য, স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভাসমূহের রাজস্ব ও আয়-ব্যয় ব্যবস্থাপনায় প্রচলিত পদ্ধতির কারণে এ প্রতিষ্ঠানসমূহ দীর্ঘদিন ধরে নানা ধরণের জটিলতা ভোগ করছে। ম্যানুয়াল (সনাতনী) হিসাব পদ্ধতি বর্তমান ডিজিটাল যুগের সাথে তাল মেলাতে অক্ষম এবং জটিল, শ্রম ও ব্যয় সাধ্য হওয়ায় প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গলধঘর্ম হতে হয়। স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভাসমূহ নানা উৎস হতে নিয়মিত রাজস্ব আহরণ করে। ম্যানুয়াল ব্যবস্থার কারণে রাজস্ব আদায় ব্যবস্থাপনাটিও যথেষ্ট কার্যকরভাবে পরিচালিত হচ্ছেনা। একদিকে রাজস্ব আদায়ের হার অনেক কম, অন্যদিকে রাজস্ব আদায়ে সিস্টেমলসের কারণে এ প্রতিষ্ঠানসমূহ আর্থিকভাবেও পিছিয়ে আছে।


সামগ্রিক আর্থিক ব্যবস্থাপনাকে ডিজিটালাইজড্ করার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানসমূহের সক্ষমতা বৃদ্ধিকল্পে স্থানীয় সরকার বিভাগের টচঊঐঝউচ (টৎনধহ চঁনষরপ ঊহারৎড়হসবহঃ ঐবধষঃয ঝবপঃড়ৎং চৎড়মৎধস) প্রজেক্ট এর আওতায় দেশের ১১ টি সিটি কর্পোরেশনে অটোমেশন প্রক্রিয়া চালুর পরিকল্পনা করা হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে ৭ টি সিটি কর্পোরেশনে এ অটোমেশন চালু করা হবে। আজ ঢাকা দক্ষিণ ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের পাইলটিং ভিত্তিতে এ অটোমেশন চালু হল। বাকী ৫ টি সিটি কর্পোরেশনের জন্য ইতোমধ্যে টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। এই প্রকল্পটি ২০১৩ সালে শুরু করা হয় এবং আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করে ২০১৬ সালে কার্যাদেশ দেওয়া হয়। প্রকল্পটির কারিগরি পার্টনার অঞঘ-জক ঝড়ভঃধিৎব খঃফ. (টঝ ইধংবফ ঈড়সঢ়ধহু). এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি)’র আর্থিক সহযোগিতায় এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। অঞঘ-জক ঝড়ভঃধিৎব-এর পাশাপাশি তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের ঘটঈউ ও ইধহমষধফবংয ঈড়সঢ়ঁঃবৎ ঈড়ঁহপরষ এ বিষয়ে কারিগরি সহযোগিতা প্রদান করবে।
চলমান প্রকল্পের আওতায় দেশের ১১ টি সিটি কর্পোরেশনে অটোমেশন চালু করা হবে। প্রকল্পের মেয়াদ এক বছর বৃদ্ধি পাওয়ায় এ অটোমেশন কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে সকল পৌরসভায় বিস্তৃত করার পরিকল্পনা রয়েছে।
বর্তমানে ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে পদ্ধতিগত শিক্ষা, আর্থিক ব্যবস্থাপনা, কর্মশালা, প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ (কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের), হার্ডওয়্যার ইনস্টলেশন ইত্যাদি সম্পন্ন করা হয়েছে। অন্য ৫ টি সিটি কর্পোরেশনে হার্ডওয়্যার ইনস্টলেশন ছাড়া বাকী কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। পরে মন্ত্রী দুই সিটি কর্পোরেশনের অটোমেশন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।

হটনিউজ24বিডি.কম/ অর্থ ও বাণিজ্য,জাতীয়,সারাদেশ,ঢাকা,প্রধান খবর,রাজনীতি,সারাদেশ/০৮-০৬-২০১৭/সম্পাদক

হটনিউজ24বিডি.কম কর্তৃক সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত. হটনিউজ24বিডি.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, অডিও কনটেন্ট হটনিউজ24বিডি.কম এর পূর্বানুমতি ব্যতীত ব্যবহার করা কপিরাইট আইন অনুযায়ী দণ্ডনীয় অপরাধ।

Comments

পাঠক আপনার মতামত দিন ।পাঠকের মন্তব্যের জন্য সম্পাদক দায়ি নন ।


comments

Comment