প্রধান খবর রাজনীতি

ধর্মীয় উৎসবগুলো আমাদের সংস্কৃতির অংশ: তথ্যমন্ত্রী

হটনিউজ ডেস্ক:

দেশের ধর্মীয় উৎসবগুলো এখন আর নির্দিষ্ট ধর্মের মানুষের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়, এগুলো দেশের সংস্কৃতির অংশ হয়ে গেছে বলে মনে করেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, দেশের ধর্মীয় উৎসবগুলোতে এখন এক ধর্মের মানুষ অন্য ধর্মের মানুষের উৎসবে অংশগ্রহণ করছে। উৎসবগুলো আমাদের মাঝে শ্রদ্ধাবোধ ও ভালোবাসা তৈরি করছে। এগুলো এখন আর ধর্মীয় উৎসবে সীমাবদ্ধ নয়, আমাদের সংস্কৃতির অংশ হয়ে গেছে।

শনিবার (১৪ মে) বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বৌদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে বাংলাদেশ বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক পরিষদ আয়োজিত ‘শুভ বৌদ্ধ পূর্ণিমা জাতীয় সম্মেলিত শান্তি শোভাযাত্রা ও সম্প্রীতি উৎসব-২০২২’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনাকে ‘অসাম্প্রদায়িকতার প্রতীক’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা অসাম্প্রদায়িক চেতনার মূর্ত প্রতীক। তিনি গণতন্ত্র, উন্নয়ন-অগ্রগতির পাশাপাশি বিভিন্ন ধর্মের মানুষের জন্যও অক্লান্ত প্ররিশ্রম করে যাচ্ছেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সকল ধর্মের মানুষের সম্মিলিত রক্ত স্রোতে আমাদের এই রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা হয়েছে।দেশে সাম্প্রদায়িক শক্তিকে মাথা চাড়া দিয়ে ওঠতে দেওয়া যাবে না। এই অপশক্তিকে অবদমিত করতে হলে শেখ হাসিনার কোনও বিকল্প নেই।

তিনি আরও বলেন, ১৯৯৬ সালে বঙ্গবন্ধু কন্যা ক্ষমতা গ্রহণ করার পর দেশে অসাম্প্রদায়িক চেতনা ফিরিয়ে আনতে অনেকগুলো উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে তা নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। আজও আমরা দেখতে পাই গোষ্ঠি ফায়দা হাসিল করতে সাম্প্রদায়িক হানাহানি সৃষ্টি করার অপচেষ্টা চালায়। দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে সবাইকে আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী।