জাতীয় ঢাকা ধর্ম

পোশাক খাতে অস্থিরতা নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

mk-Alamgir-tm নিজস্ব প্রতিবেদক, হটনিউজ২৪বিডি.কম:  বেতন বৃদ্ধি নিয়ে পঞ্চম দিনের মতো শ্রমিকদের বিক্ষোভের মুখে বিভিন্ন স্থানে কারখানায় ছুটি দেয়া হলেও এ খাতে কোনো ‘অস্থিরতা’ নেই বলে মনে করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর। বুধবার ঈদ ও পূজায় আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে এক বিশেষ সভা শেষে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, “গার্মেন্ট সেক্টরে কোনো অস্থিরতা নেই। দুই-একটি ঘটনা ঘটেছে। “আজ (বুধবার) শুধু গাজীপুরে গার্মেন্টসে একটু সমস্যা হয়েছে। আর কোথাও কিছু হয়নি।”

তবে পুলিশ বলছে, গাজীপুরের পাশাপাশি নারায়ণঞ্জ ও আশুলিয়ায় শ্রমিকরা সড়কে নেমে বিক্ষোভ করেছে; ভাংচুর করেছে যানবাহন। পুলিশের সঙ্গে সংঘাতেও জড়িয়েছে তারা।

বিক্ষোভের মুখে এসব এলাকার শতাধিক কারখানায় ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। একজন মন্ত্রীর জন্য পোশাক খাত অস্থিতিশীল হয়েছে বলে বিরোধী দলের অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কেবল মুচকি হাসেন। গত শনিবার ঢাকায় সমাবেশে যোগ দিতে বাধা পাওয়ার পর গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, সাভারসহ বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ দেখায় পোশাক শ্রমিকরা। ওই সমাবেশ থেকে শ্রমিক নেতা ও নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি আট হাজার টাকা করার দাবির সঙ্গে একাত্মতা জানান। অবশ্য পোশাক শিল্প মালিকদের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএ ন্যূনতম বেতন তিন হাজার ৬০০ টাকা করার প্রস্তাব করেছে। এ নিয়ে গত কয়েক দিন ধরে ঢাকা, গাজীপুর, সাভারসহ বিভিন্ন স্থানে শ্রমিকরা সড়কে নেমে বিক্ষোভ করছে। চলমান পরিস্থিতির জন্য নৌপরিবহনমন্ত্রীর দিকে ইঙ্গিত করে মঙ্গলবার বিএনপির ভারপাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “রানা প্লাজাসহ বিভিন্ন ঘটনার পর সম্প্রতি হঠাৎ করে এক মন্ত্রী আবির্ভূত হলেন। বিভিন্ন জায়গা থেকে শ্রমিকদের ঢাকায় এনে বৈঠক করলেন। তারই ফলশ্রুতিতে এই অরাজকতা সৃষ্টি করা হয়েছে।”

অবশ্য নৌমন্ত্রী বলছেন, শ্রমমন্ত্রী দেশে না থাকায় তাকে মালিক ও শ্রমিকপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সমস্যা সমাধানের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।এদিকে পোশাকশিল্পের পরিস্থিতি নিয়ে বিকালে জরুরি বৈঠক ডেকেছে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ানের সভাপতিত্বে এই বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। ৭০টি শ্রমিক সংগঠনকে এ বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক বৈঠক প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গত বছর ঈদ ও পূজায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ছিল। এ বছরও ‘কঠোর ব্যবস্থা’ নেয়া হবে।

এবার নাশকতার কোনো আশঙ্কা রয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, “কোনো নাশকতার আশঙ্কা করছি না। এদেশে সাম্প্রদায়িকতার কোনো স্থান নেই।” সকালে দুই দফা সভায় পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক একেএম শহীদুল হক, ডিএমপি কমিশনার বেনজির আহমেদ, র‌্যাবের মহাপরিচালক মোখলেছুর রহমান এবং বিজিবি ও আনসার প্রধান উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে অংশ নেন সার্বজনীন পূজা কমিটির নেতারাও।

সভায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলার সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া কাছাকাছি স্থানে পূজামণ্ডপ ও গরুর হাট হলে দুই পক্ষকে সমঝোতার মাধ্যমে পূজা ও হাট পরিচালনা করতে বলা হয়।