অপরাধ খুলনা রাজনীতি

মেহেরপুরে বিএনপি কার্যালয়ে আ.লীগ নেতার অগ্নিসংযোগ

fire20130923200124  জেলা প্রতিবেদক, মেহেরপুর, ২৪ সেপ্টেম্বর :  মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা বিএনপির কার্যালয় ভাঙচুর করে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে এই ঘটনা ঘটে। গাংনী পৌর মেয়র আওয়ামী লীগের নেতা আহম্মদ আলীর নেতৃত্বে এ হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মেয়র এই অভিযোগের সত্যতা স্বীকারও করেছেন। মেয়র বলেছেন, ‘জঞ্জাল সাফ করতেই’ তিনি এ হামলা চালিয়েছেন। মেয়র ঘোষণা দিয়েছেন, কার্যালয় খুললে তিনি আবার হামলা চালাবেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ৫০-৬০ জনের একটি দল লাঠি মিছিল নিয়ে বিএনপির কার্যালয়ে হামলা চালায়। এই সময় কার্যালয় বন্ধ ছিল। হামলাকারীরা কার্যালয়ের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে টেলিভিশনসহ আসবাব ভাঙচুর ও কাগজপত্র লুটপাট করে। এরপর তারা সেখানে আগুন ধরিয়ে দেয়। মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সাংসদ ও জেলা বিএনপির সভাপতি আমজাদ হোসেন জানান, তিনি কিছু সালিশি কাজ সম্পন্ন করে কার্যালয় বন্ধ করে বাড়ি ফিরলে এই হামলার ঘটনা ঘটে। দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর শেষে দলের চেয়ারপারসন ও দলের প্রতিষ্ঠাতার ছবিসহ কার্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। হামলাকারীরা চলে যাওয়ার পর এলাকার লোকজন আগুন নিভিয়ে ফেলেন। গাংনী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফারুকুল ইসলাম জানান, গাংনী পৌর মেয়রের নেতৃত্বে এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় কিছু আসবাব ভাঙচুর ও আগুনে আংশিক ক্ষতি হয়েছে। একটি সালিশির বিচার অপছন্দ হওয়ায় এই ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিভায় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।এ ব্যাপারে গাংনী পৌর মেয়র আহম্মদ আলী পরে গাংনী হাসপাতাল বাজারে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেন গাংনী উপজেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে অস্ত্র সরবরাহ করা হয়। অস্ত্রধারীরা সেখান থেকে বিভিন্ন সময় সাধারণ মানুষের ওপর হামলা চালায়। তাই তিনি নিজেই বিএনপির কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন। জঞ্জাল সাফ করতেই এ হামলা চালিয়েছেন। তিনি এই কার্যালয় আর খুলতে দেবেন না। খুললে আবার হামলা চালাবেন বলে ঘোষণা দেন।