চট্টগ্রাম জাতীয়

জনগণের শক্তির কাছে কেউ টিকতে পারবে না: ড. কামাল

kamal20130919204438  নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম, ২০ সেপ্টেম্বর:  গণফোরাম সভাপতি, সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. কামাল হোসেন বলেছেন, আওয়ামী লীগ দিন বদলের কর্মসূচি দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল।

এখন তারা সংবিধানের দোহাই দিয়ে জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করছে। কিন্তু হতাশ হওয়ার কোন কারণ নেই। তাদের ঐক্যবদ্ধ শক্তির কাছে কেউ ঠিকে থাকতে পারবে না। এখন ঐতিহাসিক ছয় দফা আন্দোলনের মতো আবারো “জাগো জাগো, বাঙ্গালী জাগো” শ্লোগান তুলে জনগণকে জাগিয়ে তুলতে হবে।
ড. কামাল আরো বলেন, এদেশে জনগণ কোন প্রহসনের নির্বাচন মানবে না। সবার প্রত্যাশা অনুযায়ী ২০১৪ সালে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন না হলে জনগণই রুখে দাঁড়াবে। এই সঙ্কট থেকে দেশ বাঁচাতে জাতীয় ঐক্য প্রয়োজন।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের লালদিঘীর মাঠে “জাতীয় স্বার্থে জাতীয় ঐক্য” প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
নগর গণফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল মোমেনের সভাপতিত্বে জনসভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, সুজনের সভাপতি ড. বদিউল আলম মজুমদার এবং এস এম আকরাম প্রমুখ।
ড. কামাল আরো বলেন, প্রশাসন, সংসদ, বিচার বিভাগ, নির্বাচন কমিশন, দুদকসহ রাস্ট্রের সবগুলো প্রতিষ্ঠান দলীয়করণের মাধ্যমে দুর্বল ও অকার্যকর করে দেয়া হয়েছে। ১৫০ বছরের ইতিহাসে এবারের মতো উচ্চ আদালতে এতগুলো জজ নিয়োগ হয়নি।
দলীয় দৃষ্টিভঙ্গি থেকে হাইকোর্টের বিচারক নিয়োগ করা হয়েছে। এই অবস্থায় কীভাবে নিরপেক্ষতা রক্ষা হবে, আর নিরপেক্ষতা ছাড়া কীভাবে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন হবে এ প্রশ্ন এখন জনগণের।
তিনি বলেন, গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য সবদল ও পেশার লোকদের নিয়ে একটি অর্থবহ সংলাপ হতে হবে। কোন প্রহসনের নির্বাচন জনগন মেনে নেবে না।
সমাবেশে মেজর (অব.) মান্নান বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে ২০ বছর ক্ষমতার উত্থান-পতন আর ১৯৯১ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ২৩ বছর লুটপাটের যুগ। স্বাধীনতার ৪২ বছরেও জনগণের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি।
তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা বাতিল করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের সঙ্গে বেঈমানি করেছেন মন্তব্য করে মেজর মান্নান আরো বলেন, “যে পথে শেখ হাসিনা যাচ্ছেন সে পথ ভয়াবহ। বিকল্প ধারা তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোনো একদলীয় নির্বাচনে অংশ নেবে না।
নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, দেশ দুটি দলের মার্কার মধ্যে ঢুকে গেছে বলে যারা হতাশ হচ্ছেন তাদের এখন দুর্বৃত্তায়িত ও লুটপাটের রাজনীতির বিরুদ্ধে ভালো লোকেদের নেতৃত্ব বেছে নেয়ার সময় এসেছে। সবার অংশগ্রহণে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন না হলে গায়ের জোরের কোনো নির্বাচন আমরা মানবো না।
‘প্রার্থী নয় মার্কা দেখে ভোট দিতে হবে’ প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে মান্না বলেন, যে মার্কার পেছনে থাকেন দাগী আসামি, লুটপাটকারী আর জনগণের অধিকার হরণকারী তাদের জনগণ গ্রহণ করবে কি-না সে সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় এসেছে।