অপরাধ খুলনা রাজনীতি

দু’গ্রুপের সংঘর্ষ

সংঘর্ষ রিপন হোসেন, যশোর থেকে :  যশোর সার্কিট হাউজে ছাত্রলীগের বর্ধিত সভায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষ ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষের কারণে সভাটি পণ্ড হয়ে গেছে। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে, সার্কিট হাউজে বর্ধিত সভার আয়োজন নিয়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। ছাত্রলীগ সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বুধবার বিকেলে যশোর সার্কিট হাউজে জেলা ছাত্রলীগের বর্ধিত সভা আহ্বান করা হয়। সভায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ সভাপতি জয়দেব নন্দী ও শাহিন আহমেদসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সন্ধ্যায় সভার শেষ দিকে বক্তব্য দেয়া ও পূর্ব বিরোধ নিয়ে বাক বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে জেলা ছাত্রলীগে সভাপতি রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক বিপুলের পক্ষের দু’টি গ্র“প। একপর্যায়ে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। মারপিটের শিকার হন জেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মিথুনসহ ৩/৪ জন। এ সময় সার্কিট হাউজের পানির গ্লাসসহ তৈজসপত্র ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপারে বক্তব্যের জন্য জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আরিফুল ইসলাম রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুলকে বারবার ফোন দেয়া হলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি। এদিকে, সার্কিট হাউজে ছাত্রলীগের বর্ধিত সভা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে যশোরের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) ডিএম সরফরাজ জানান, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কয়েকজন নেতা সার্কিট হাউজে অবস্থান করছিলেন। তারা ওই সভার আয়োজন করেছিলেন। সংঘর্ষের খবর পেয়ে এনডিসি সার্কিট হাউজে গিয়েছিলেন উল্লেখ করে জানান, তিনি নেতাদের তাদের কক্ষে অবস্থান নিতে বলেন। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে যশোরের জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সার্কিট হাউজে ছাত্রলীগের বর্ধিত সভা সম্পর্কে তিনি অবগত ছিলেন না। যখনই তিনি বিষয়টি শুনেছেন, সংশ্লিষ্টদের সার্কিট হাউজের বাইরে গিয়ে সভা করতে বলেছেন।

তবে সার্কিট হাউজে ভাংচুরের ঘটনা জেলা প্রশাসক ও এনডিসি দু’জনেরই অস্বীকার করেছেন।