চট্টগ্রাম জাতীয় শিক্ষাঙ্গন

ছাত্রফ্রন্টের বিক্ষোভ ও স্মারকলিপি পেশ

Noakhali News (1)pic2  17.09.2013
কামাল হোসেন মাসুদ, নোয়াখালী প্রতিনিধি:   মহান শিক্ষা দিবসের ৫১তম বার্ষিকী উপলক্ষে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট নোয়াখালী সরকারি কলেজে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ৮ দফা দাবিতে কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও আলোচনা সভা করে। আলোচনা ও বিক্ষোভ মিছিল শেষে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অধ্যক্ষ বরাবরে দাবি সম্বলিত একটি স্মারক লিপি প্রদান করেন। এসময় ছাত্র ফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও বিভিন্ন বিভাগের সাধারণ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা অবিলম্বে কলেজ সংলগ্ন রাস্তাসমূহ সংস্কার ও কলেজ বাস চালু, লাইব্রেরী সেমিনারে নতুন সংস্করণের বই উত্তোলন ও দৈনিক পত্রিকা সরবরাহ নিশ্চিত এবং ক্লাসরুমের বৈদ্যুতিক পাখা ও শৌচাগারগুলো ব্যবহার উপযোগী করা, আবাসন সংকট নিরসনে হল-হোস্টেল নির্মাণ ও ভর্তি সংকট নিরসনে আসন সংখ্যা বৃদ্ধি করা, ইন্টারমিডিয়েট ক্যাম্পাসে নতুন ভবন নির্মাণ ও ল্যাবরেটরি স্থাপন করা, স্বতন্ত্র পরীক্ষা হলকে “শহীদ মুনীর চৌধুরী’ নামকরণ করা, পর্যাপ্ত শিক্ষক নিয়োগ ও ক্লাসরুম নির্মাণ করে সারা বছর ক্লাস চালু রাখা, একাডেমিক ক্যালেন্ডার চালু ও তিন মাসের মধ্যে ফল প্রকাশ করে সেশনজট নিরসন করা, নামে-বেনামে ফি আদায় করা বন্ধ করে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি করার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

আলোচনায় বক্তারা বলেন, পাকিস্তানী শিক্ষা কমিশনের ঘোষিত নীতি “শিক্ষা সস্তায় পাওয়া যায় বলিয়া তাহাদের (জনগণের) যে ভুল ধারনা রহিয়াছে তা শীঘ্রই ত্যাগ করিতে হইবে” এর বিরুদ্ধে লড়াই করে এ দেশের ছাত্র জনতা জীবন দিয়ে যে চেতনা মানুষের সামনে রেখে গেছে, তা সচেতন ছাত্র সমাজ আজও ভুলেনি। বর্তমান শাসকগোষ্ঠী শিক্ষার নীতিগত প্রশ্নে আজও সার্বজনীন শিক্ষার আয়োজন নিশ্চিত করছে না। যার প্রভাব সারা দেশের ন্যায় নোয়াখালী কলেজও বহন করছে। এ কলেজে জেলার আধি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি বিদ্যাপীঠ। প্রায় ১৩ হাজার শিক্ষার্থীর নোয়াখালী সরকারি কলেজ প্রতিষ্ঠার ৫০ বছরে পদার্পন করলেও ছাত্র সংখ্যার তুলনায় আয়োজন খুবই অপ্রতুল। কলেজ সংলগ্ন রাস্তাসমূহের অবস্থা এতই নাজুক যে বর্তমানে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। কলেজ ও পৌরসভা প্রশাসন এ ব্যাপারে নির্বিকার। ছাত্ররা নিয়মিত সেমিনার ফি দিলেও সেমিনারে নতুন শিক্ষা পদ্ধতির কোন বই তোলা হচ্ছে না। ৯২টি ব্যাচের ছাত্র ছাত্রীদের জন্য মাত্র ৩২টি ক্লাসরুম আছে। সেশনজটে শিক্ষার্থীদের জীবনের মূল্যবান সময় অপচয় হচ্ছে। হল হোস্টেলের অভাবে কলেজের শিক্ষার্থীদের অস্বাস্থ্যকর মেসে অতিরিক্ত টাকা দিয়ে থাকতে হচ্ছে।

আলোচনা সভায় সংগঠনের কলেজ শাখার আহ্বায়ক আনোয়ারুল হক পলাশের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ছাত্র ফ্রন্টের পূর্ণ সদস্য মাসুদ রেজা, জসিম উদ্দিন খোকন ও কাজী জহির উদ্দিন প্রমুখ।