জাতীয় ঢাকা

ভাঙ্গায় মা আমেনা ফাউন্ডেশন হতে শিক্ষার্থীদের উপ-বৃত্তি প্রদান

download (3) ভাঙ্গা(ফরিদপুর)প্রতিনিধি:  গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে গতকাল শনিবার দুপুরে মা আমেনা ফাউন্ডেশনের পক্ষ হতে উপ-বৃত্তির টাকা প্রদান করা হয়েছে। মা আমেনা ফাউন্ডেশনের জেনারেল সেক্রেটারী সেক ফজলুল হক মিরু তার গ্রামের বাড়ী পাতরাইল দিধীরপাড় এসে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের মাঝে অর্থ বিতরন করেন। প্রত্যেক জুনিয়র লেবেলের শিক্ষার্থীদের ৫ শত টাকা, মেডিকেল কলেজে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রত্যেককে ২ হাজার টাকা প্রদান করেন।

জানা গেছে, সেক সিরাজুল হকের স্ত্রী আমেনা বেগম মারা যাবার পর তাদের ৭ সন্তান মিলে মায়ের নামে গ্রামের গবীর মেধাবী শিক্ষার্থী, বৃদ্ধদের জন্য বয়স্কভাতা, মাতৃত্বজনিত অসহায় মায়েদের জন্য মাতৃকালীন ভাতা, পতিতালয়ের ছেলে মেয়েদের আবাসনের সুবিধা রেখে গত দেড় বছর আগে চালু করেন মা আমেনা ফাউন্ডেশন নামে একটি অর্থনৈতিক সেবামুলক প্রতিষ্ঠান। যার ধারাবাহিকতায় উপকৃত হচ্ছে প্রতিমাসে শতাধীক শিক্ষার্থী সহ গ্রামের নানা শ্রেনী পেশার লোকজন। উপবৃত্তির টাকা পেয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী সোনিয়া খানম কলেন, আমি প্রতিমাসে এই টাকা পেয়ে আমার পড়াশুনার বেশ সহোযোগীতা হচ্ছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আমির হোসেন জানায়, উক্ত ফাউন্ডেশনটি শিক্ষার্থীদরে যে ভাবে পাশে এসে দাড়িয়েছে তাতে গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের খুবই উপকারে আসবে। পুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সুবর্না ও হাজী মজিদ একাডেমির শিক্ষার্থী নাজমুল নাহার আবেগ আপ্লুত কন্ঠে বলেন অর্থ অভাবে তাদের পড়াশুনা যখন বন্ধ হবার উপক্রম তখন মা আমেনা ফাউন্ডেশন পাশে দাড়ানোতে আবার আমরা ঠিক মত পড়াশুনা করতে পারছি। এব্যাপারে ফাউন্ডেশনের জেনারেল সেক্রেটারী সেক ফজলুল হক মিরু বলেন, আমরাও অতি সাধারন ঘরের সন্তান, আমি জানি কষ্ট কি জিনিস, সুতরাং যতদিন বেচে থাকব ততদিন এই ফাউন্ডেশন থেকে গরীব দুখিদের সাহায্য সহযোগিতা করে যাব। তিনি আরো জানান, ঢাকায় পতিতা পল্লীর ৩৫ জন অসহায় ছেলে মেয়েদের সে প্রতিদিন সার্বিক সহযোগিতা করছেন। ভবিষ্যতে গ্রামের বাড়ীতে একটি বৃদ্ধশ্রম গড়ে তুলার লক্ষ্য সামনে রেখে পরিবারে সবাই কাজ করে যাচ্ছেন।