চট্টগ্রাম জাতীয়

৩০ বছর পরেও!

শাহ মোহাম্মদ মাকসুদুল আলম, চাঁদপুর:  ৩০ বছরের পুরানো কবরে পাওয়া গেলো মৃত ব্যক্তির অক্ষত কাফনের কাপড়। দিঘির পাড়ে স্থাপিত কবরের মাটি অতি বৃষ্টিতে ক্ষয়ে পড়ে যাওয়ায় কবরটি ভেসে উঠে। এর পরেই মৃত ব্যক্তির ওই কবরটির সন্ধান মিলে। এ ঘটনায় ঘটনাস্থল চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার ৫নং সদর ইউনিয়নের অলিপুর এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। আর এ বিষ্ময়কর ঘটনা দেখতে দিনভর হাজার হাজার লোক সেখানে ভিড় জমায়। ঘটনাস্থলে যেয়ে জানা যায়, অলিপুর ঢালী বাড়ির সাবেক সাত গ্রামের মোল্লা মৃত বক্তার মিজির ছেলে আলহাজ ইসমাইল হোসেন মিজি শতাধিক বছর অতিক্রান্ত হবার পর ৩০ বছর বছর আগে মারা যান। ধর্মীয় নিয়ম অনুযায়ী ইসমাইল হাজীকে অলিপুর ৪ অলির মাজার সংলগ্ন চৌধুরী দিঘির পশ্চিম-দক্ষিণ পাড়ে স্থায়ী কবরস্থানে মাটি দেয়া হয়। গত ক’দিনের অতি বৃষ্টিতে দিঘির পাড়ের ওই কবরের মাটি ক্ষয়ে দিঘিতে পড়ে যায়। কবর ভাঙ্গার ফলে ৩০ বছর আগে মাটি দেয়া মৃত ইসমাইল হাজীর কাফনের কাপড়ের মাথার অংশ প্রায় ১ ফুট ভেসে উঠে। স্থানীয় ক’জন ব্যক্তি ওই দৃশ্য দেখে কাছে গিয়ে দেখেন মৃত ব্যক্তিকে মাটি দেয়ার সময় যে কাপড় ব্যবহার করা হয়েছে তার একটুতেও পচন ধরেনি বা নষ্ট হয়নি। বিষয়টি এক এক করে জানাজানি হলে ওই এলাকার হাজার হাজার উৎসাহী জনগণ তা দেখতে ভিড় জমায় দিঘির পাড়ে। সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত ওই স্থানে উৎসাহী লোকজনকে যাওয়া-আসা করতে দেখা গেছে।

মৃত ইসমাইল হাজীর ছেলে মমিন মিজি (৮৫) জানান, আব্বা মারা গেছেন প্রায় ৩০ বছর আগে। জীবদ্দশায় আব্বা পায়ে হেঁটে মক্কা শরীফে গিয়ে হজ্ব করেছেন। সবই আল্লাহ ভালো জানেন।

মৃত ইসমাইল হাজীর লাশের মাথার অংশ সোমবার পুনরায় মাটি দিয়ে ঢেকে দিয়েছেন এমন একজন হলেন অলিপুর গ্রামের হাজী বাড়ির হানিফ। তিনি জানান, আমি প্রথমে কবরে গিয়ে মাথার কাপড়টি ভাজ করার জন্য কাপড়ে হাত দেই। আশ্চর্য হয়ে যাই এতটুকু কাপড় পচেনি বা নষ্ট হয়নি দেখে। এ সময় আমি আরো উৎসাহী হয়ে লাশের মাথায় হাত দিয়ে দেখি উনার মাথার চুলও তেমন একটা নষ্ট হয়নি।