চট্টগ্রাম শিক্ষাঙ্গন

গণিতে সৃজনশীল, চাইনা, চাইনা এবং চাইনা

SAM_0061চট্টগ্রাম প্রতিনিধি, ১০ সেপ্টেম্বর:  গণিতে সৃজনশীল পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে আজ ১০ সেপ্টেম্বর বেলা ১২টা চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব চত্ত্বরে সাধারণ ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে ছাত্র সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সমাবেশে বক্তরা বলেন, শিক্ষার্থীদের মাঝে এমনিতেই গণিত ভীতির বিষয়টি প্রকটভাবে রয়েছে তার উপর সৃজনশীল পদ্ধতি, যেটির সাথে আমরা কোনভাবে পরিচিত নই। গত অর্ধবার্ষিক পরীক্ষায় চট্টগ্রামের সবগুলো স্কুলেই গণিতে ৭০%-৮০% ছাত্র ফেল করেছে শুধু মাত্র আমাদের উপর হঠাৎ করে গণিতে সৃজনশীল পদ্ধতি চাপিয়ে দেওয়ার কারণে।

বক্তারা আরো বলেন, ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে অন্যান্য বিষয় সৃজনশীল পদ্ধতি চালু থাকলেও নবম শ্রেণীতে গণিতে সৃজনশীল হঠাৎ করে চাপিয়ে দেওয়া হয় যার কারণে আমরা অর্ধবার্ষিক পরীক্ষায় অন্যান্য বিষয়ে ভাল ফলাফল করলেও গণিতে ভাল ফলাফল করতে পারিনি। তারা বলেন, শুধু স্কুলে পড়েই সবাই ভাল ফলাফল করতে পারেনা। একজন ছাত্রের ভাল ফলাফলের পেছনে তার গৃহশিক্ষক ও অভিবাবকের অবদান থাকে আর সেই শিক্ষক ও অভিবাবকগণ যদি গণিত সৃজনশীল পদ্ধতি না বুঝেন তাহলে ছাত্র ছাত্রীদের ভাল ফলাফল অর্জনে তাঁরা কীভাবে অবদান রাখবেন?

বক্তারা বলেন, গণিত সৃজনশীল নিয়ে শিক্ষকদের যে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে তা পর্যাপ্ত নয় যদি পর্যাপ্ত হত তাহলে আজ আমাদের রাস্তায় আসতে হত না। যদি শহরের ছাত্রদের এমন অবস্থা হয় তাহলে গ্রামের পিছিয়ে থাকা ছাত্রদের অবস্থা তো আরো নাজুক। গণিত সৃজনশীল ব্যবস্থা শুধু ফল বিপর্যয়ের কারণই হবে না এই ব্যবস্থার কারণে অনেক শিক্ষার্থী পড়াশুনা থেকে আগ্রহ হারিয়ে শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে ছিটকে পড়বে। যদি গণিতে সৃজনশীল পদ্ধতি ৬ষ্ট শ্রেণী থেকে চালু হয় তবে শিক্ষার্থীরা ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে পরীক্ষায় অবতীর্ন হওয়ার সুযোগ পাবে। তাছাড়া গণিতের শিক্ষক স্বল্পতার এ সময়ে বিষয়টি আরও বেশি নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এ প্রভাবের মাত্রা শহরের তুলনায় গ্রামে আরও বেশি প্রকটভাবে দেখা দেবে। সরকারের শতকরা পাসের যে লক্ষ্যমাত্রা, তা প্রচন্ডভাবে ব্যাহত হবে বলে আমরা মনে করি। উত্তরোত্তর ফলাফল ভালো করার যে প্রক্রিয়া সেটি নিমিষেই পরিণত হবে ফলাফল বিপর্যয়ে শুধু মাত্র আমাদের উপর হুট করে চাপিয়ে দেওয়া গণিতে সৃজনশীলতার কারণে। এছাড়া আমাদের শিক্ষকরা বিশেষ করে গ্রামাঞ্চল-প্রত্যন্তঅঞ্চলের শিক্ষকরা গণিতে সৃজনশীল বিষয়টির সাথে মোটেও পরিচিত নন। এ কারণে আমাদের দাবি বিবেচনা করার বিকল্প নেই। সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে নবম শ্রেণী থেকে গণিত সৃজনশীল বাতিল করে ষষ্ট শ্রেণী থেকে ক্রমান্বয়ে চালু করার জোর দাবী জানান। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন রাকিব হাসান, মাহামুদুল্লাহ, নাহিদ হাসান, মোঃ মর্তুজা আলী হৃদয়, আকিব সাকিব, মোঃ জামিল হাসান, মোঃ শাফায়েত উল্লাহ, মোঃ আসিফ প্রমূখ।

সমাবেশ শেষে এশটি বিক্ষোভ মিছিল নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে কাজীর দেউড়ী মোড়ে এসে শেষ হয়।