জাতীয় ঢাকা প্রধান খবর রাজনীতি

সরকার নির্দলীয় হতে হবে: ইইউকে বিএনপি

BNP-EU (1)জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক হটনিউজ২৪বিডি.কম,ঢাকা:  ঢাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হানার নেতৃত্বে ওই প্রতিনিধি দলটি আওয়ামী লীগের সঙ্গে আলোচনার একদিন পর বিএনপির সঙ্গে বৈঠকে বসে।

ইইউ’র সঙ্গে বৈঠকে ক্ষমতাসীন দল সংসদে আলোচনার যে প্রস্তাব্ দিয়েছেন, তা প্রত্যাখ্যান করে বিএনপি বলেছে, অধিবেশনে নয়, তবে সংসদের কোনো কক্ষে এই সংলাপ হতে পারে।

এম কে আনোয়ারের নেতৃত্বে নয় নেতা গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে দেড় ঘণ্টা ধরে সাত সদস্যের ইইউ প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, রিয়াজ রহমান, সাবিহ উদ্দিন আহমেদ, এস এম আবদুল হালিম, সহসভাপতি শমসের মবিন চৌধুরী, অবসরপ্রাপ্ত সচিব আবদুর রশীদ সরকার, হারুন অর রশীদ এ্ই বৈঠকে ছিলেন।

বৈঠকের পর এম কে আনোয়ার সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা বলেছি, বর্তমান বিধানে প্রধানমন্ত্রী ও তার মন্ত্রিসভা বহাল রেখে সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নেই। দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে তা প্রহসন হবে। বিএনপিসহ অনেক দল ওই নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না।”

উইলিয়াম হানা সংলাপের ওপর জোর দিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, “ইউরোপীয় ইউনিয়ন মনে করে, সরকার ও বিরোধী দল আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করবে।

“সংলাপের বিষয়বস্তু কী হবে, কী ধরনের সংলাপ হবে- সে বিষয়ে আমরা কিছু বলব না।”

সংলাপে বিএনপির আপত্তি নেই বলে কূটনীতিকদের জানিয়েছেন এম কে আনোয়ার।

“একটি অর্থবহ সংলাপের মাধ্যমে সমাধান আমরা চাই। পুরো তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল করতে হবে- এমন নয়। আমরা একটি নির্দলীয় সরকার চাই। তার রূপরেখা কী হবে, কারা ওই সরকারের উপদেষ্টা হবেন, ওই সরকারের মেয়াদ কতদিন হবে- ইত্যাদি বিষয়ে আমরা সরকারের সঙ্গে সংলাপ করতে আগ্রহী।”

সংসদে আলোচনার প্রস্তাবের বিষয়ে আনোয়ার বলেন, “সংসদে বিতর্ক হয়, ভোটাভুটি হয়, সেটা আলোচনার জায়গা নয়। আলোচনা হতে পারে সংসদ ভবনের কোনো কক্ষে। যারা সংসদে আলোচনার কথা বলছেন, তারা ইনটেলেকচুয়ালি ডিজ অনেস্ট।”

সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনের পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় আগামী নির্বাচন হবে। দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে না দাবি করে নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকার পদ্ধতি পুনর্বহালের দাবি জানিয়ে আসছে বিএনপি।

সংবিধান অনুযায়ী আগামী ২৪ অক্টোবর থেকে ২৪ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন হবে। তবে বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হলে তা বয়কটের হুমকি রয়েছে বিরোধী দলের।

উইলিয়াম হানা জানান, নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল পাঠাতে ইইউর নির্বাচন বিষয়ক তথ্য অনুসন্ধানী একটি দল বর্তমানে বাংলাদেশে অবস্থান করছে।

“এই টিমটি তার সফর শেষ করে উচ্চ পর্যায়ে একটি প্রতিবেদন পেশ করবে।”

বাংলাদেশে স্থিতিশীলতা রক্ষায় সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন ইইউ চায় বলে জানান রাষ্ট্রদূত।