অপরাধ সিলেট

জা’মাত-শিবিরের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ॥ আহত ১৪, আটক ৫

downloadএম শাহজাহান আহমদ,মৌলভীবাজার:  মৌলভীবাজারের জুড়ীতে জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় ১৪ জন আহত হয়েছেন। এসময় জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা হামলায় রাস্তায় দুটি গাড়ি ভাঙ্গচুর করে। রবিবার সকাল ও বিকেলে থেমে থেমে এ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। তাদের উপজেলার ও জেলার বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিক ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে, ঘটনার পর পুলিশ বদর উদ্দিন বদই (৩২), জহিরুল ইসলাম (৪০), আদর্শ লাইব্রেরীর সত্ত্বাধিকারী শরন (২১), মোশাহিদ (২৫) ও শিবির কর্মী সন্দেহে জুড়ী মডেল হাই স্কুলের নবম শ্রেণীর এক ছাত্রকেও আটক করেছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে ছাত্র শিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ দেলাওয়ার হোসেনসহ গ্রেফতারকৃত সকল নেতাকর্মীর মুক্তির দাবীতে জামায়াত-শিবিরের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নেতাকর্মীরা উপজেলা বাজারে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। পুলিশ তাতে বাধা দিলে জামায়াত-শিবিরের কর্মীদের সাথে পুলিশের বাকবিত-া শুরু হয়। এক পর্যায়ে জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে সংঘর্ষ বেধে গেলে পুলিশের সাথে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও যোগ দেন। এসময় জামায়াত-শিবিরের ১২ জন কর্মী ও পুলিশের ২ জন সদস্য আহত হন। শিবিরের জুড়ী উপজেলা শাখার সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান, শান্তিপূর্ণভাবে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে উপজেলা শহর প্রদক্ষিণ শেষে নিউ মার্কেটের সামনে পথসভা করার জন্য মিছিলে অংশ নেওয়া শিবিরের নেতাকর্মীরা একত্রিত হলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এক পর্যায়ে পুলিশের কাছে ৫ মিনিটের জন্য সময় চাইলে পুলিশ তাতে সায়ও দেয়। কিন্তু পথসভা শুরুর সাথে সাথে পুলিশ ও যুবলীগের কর্মীরা আমাদের উপর অতর্কিতে হামলা চালায়। এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগের জুড়ী উপজেলা শাখার সদস্য ও ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ঘটনার সাথে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করে বলেন, শিবিরের নেতাকর্মীরা জঙ্গি কায়দায় সাধারণ ব্যবসায়ী ও পরিবহন শ্রমিকদের উপর হামলা চালালে সর্বস্তরের মানুষ তাদের প্রতিরোধ করে।

জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মাহবুবুর রহমান বিকেল ৪টায় জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।