অপরাধ ঢাকা প্রধান খবর

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হত্যা মামলার তদন্তে অগ্রগতি নেই

Fajlur-rahman-sm20130906073409আছাদুজ্জামান, হটনিউজ২৪বিডি.কম,ঢাকা:  রাজধানীর রামপুরায় নিজ বাড়িতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে সাবেক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলুল করিম খান নিহত হওয়ার ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো ক্লু উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকাণ্ডের পর এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও কোনো কূলকিনারা হয়নি। মামলাটির তদন্তভার ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওপর ন্যস্ত করা হলেও এ ব্যাপারে কোনো অগ্রগতি নেই বলে জানা গেছে। এসব কারণে পরিবারের সদস্যদের মধ্যেও নেমে এসেছে চরম হতাশা। তবে ডিবির যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম হটনিউজকে বলেন, গোয়েন্দা পুলিশ এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও আসামি গ্রেফতারে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছে। দু’টি কারণ সামনে রেখে তদন্ত এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি। গত ২৯ আগস্ট সকাল সাড়ে নয়টার দিকে সিআইডি পুলিশের সাবেক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলুল করিম খানকে তার নিজ বাসায় গুলি করে হত্যা করে তিন যুবক।এ ঘটনায় নিহতের একমাত্র মেয়ের স্বামী ব্যারিস্টার মুকিম উদ্দীন খান জাহান আলী চৌধুরী ৩০ আগস্ট বাদী হয়ে রামপুরা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটির তদন্তভার ন্যস্ত হয় মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হাতে। পুলিশের একটি সূত্র জানায়, গোয়েন্দা বিভাগে মামলাটির তদন্তভার ন্যস্ত হওয়ার পর থেকেই খুনের কারণ অনুসন্ধানে মাঠে নামে গোয়েন্দারা। তারা বেশ কয়েকবার নিহত কর্মকর্তার বাড়িতে যান। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন। জানার চেষ্টা করেন নিহত পুলিশ কর্মকর্তার কোনো কোনো ব্যক্তিগত শত্রু ছিল কি না? ব্যারিস্টার মুকিম উদ্দীন খান জাহান আলী চৌধুরী হটনিউজকে বলেন, বাসার ভেতরে ঢুকে একজন সাবেক পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রকাশ্যে এভাবে গুলি করে হত্যার ঘটনায় আমরা সবাই মর্মাহত। আমাদের সবারই ভবিষ্যতের জন্য খুনিদের চিহ্নিত করা প্রয়োজন। তিনি অভিযোগ করেন, সপ্তাহ পার হয়ে গেলেও এ রকম একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনার রহস্য উদঘাটন কিংবা আসামিদের কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি ‍পুলিশ। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কি কারণে এই হত্যাকাণ্ড তা এখনো বুঝতে পারছি না। তবে যে কারণেই এ হত্যাকাণ্ড ঘটুক না কেন, আমরা খুনিদের গ্রেফতার দেখতে চাই। এদিকে গোয়েন্দা বিভাগের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম জানান, দু’টি বিষয়কে সামনে নিয়ে তদন্ত চলছে। একটি হচ্ছে, পারিবারিক জমিজমা নিয়ে বিরোধ। অন্যটি তার পেশাগত জীবনে কোনো মামলার তদন্ত নিয়ে কারও সঙ্গে বিরোধ। তিনি বলেন, আমরা খুনিদের আটক করতে চেষ্টা করে যাচ্ছি। সূত্র জানায়, হত্যাকাণ্ডটি পূর্বপরিকল্পিত এতে কোনো সন্দেহ নেই। কেননা নিহত পুলিশ কর্মকর্তা কখন বাসায় থাকবেন আর কখন বেরুবেন এগুলো খুনিরা পূর্ব থেকেই জেনে নেয়। এছাড়া এত স্বল্প সময়ের মধ্যে গলি দিয়ে সন্ত্রাসীদের পালিয়ে যাওয়ার বিষয়টিও রহস্যজনক।