অপরাধ ঢাকা হটনিউজ স্পেশাল

অধিকারের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ দাখিল

Adhiker20130904040704 সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, হটনিউজ২৪বিডি.কম,ঢাকা:  গত ৫ মে হেফাজতের সমাবেশকে নিয়ে মিথ্যা তথ্য দেওয়ায় মানবাধিকার সংস্থা ‘অধিকার’ সম্পাদক আদিলুর রহমান খান শুভ্র ও পরিচালক এএসএম নাসির উদ্দিন এলানের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ দাখিল করেছে পুলিশ।

বুধবার দুপুরে ঢাকার সিএমএম আদালতে ডিবি পুলিশের পরিদর্শক আশরাফুল আলম এ অভিযোগ দাখিল করেন।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন-২০০৬ এর ৫৭ (১) ও ৫৭(২) ধারা তৎসহ দণ্ডবিধির ৫০৫ (সি)(ডি) ও ৫০৫ ধারায় এ অভিযোগ দাখিল করা হয়।

সংশ্লিষ্ট আদালতের জিআরও কুতুবুল আলম বলেন, বৃহস্পতিবার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট জয়নাব বেগমের আদালতে অভিযোগটি উপস্থাপন করা হবে।

অভিযোগে ২৮ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে।

গত ১০ আগস্ট আদিলুর রহমানকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ উত্তরের সাইবার ক্রাইম টিম তথ্যপ্রযুক্তি আইন (আইসিটি অ্যাক্ট) লঙ্ঘনের অভিযোগে গ্রেফতার করে। এরপর ১১ আগস্ট তাকে আদালতে হাজির করা হলে ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। পরে হাইকোর্টের নির্দেশে রিমান্ড স্থগিত করা হয়।

আদালতে দাখিল করা অভিযোগ থেকে জানা গেছে, আসামিরা তাদের পরিচালনাধীন ‘অধিকার’ নামক সংস্থার মাধ্যমে গত ৫ মে শাপলা চত্বরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হামলায় ৬১ জনের মৃত্যু সম্পর্কে বানোয়াট ও মিথ্যা তথ্য সম্বলিত প্রতিবেদন তৈরী ও প্রচার করেন। এতে দেশ-বিদেশে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুন্ন হয়।

অভিযোগে দাবি করা হয়, ৫ মে দিনগত রাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী হেফাজত কর্মীদের শাপলা চত্বর ত্যাগ করতে অনুরোধ করে। কিন্তু তারা শাপলা চত্বর ত্যাগ না করে পুলিশের ওপর হামলা করে এক পুলিশ সদস্যকে হত্যা ও কয়েকজনকে আহত করে।

অধিকারের ৬১ জনের তালিকা পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এর ক্রমিক সংখ্যা ১০ নেই। অর্থাৎ ৯ এর পর ১১ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া একই ব্যক্তিকে দু’বার করে দেখানো হয়েছে ৫টি ক্ষেত্রে। যেমন: ক্রমিক ৭ ও ৯, ১৬ ও ৫৮, ১৮ ও ২০, ৬ ও ২১ এবং ২৩ ও ৪২।

এছাড়া তালিকার ৩০ নম্বরে বর্ণিত আল আমীন, ৩৬ নম্বরে জাহিদুল ইসলাম সৌরভ, ৫৬ নম্বরে জসিম ও ৫৮ নম্বরে সোহেল জীবিত আছেন। ক্রমিক নম্বর ৫৭ কামাল উদ্দিন হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন।

প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়, ক্রমিক নম্বর ১২ মুহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ, ক্রমিক নম্বর ১৩ লুৎফর রহমান, ক্রমিক নম্বর ২৬ মাওলানা মোহাম্মদ হাসান, ক্রমিক নম্বর ২৯ হাফেজ লোকমান, ক্রমিক নম্বর ৩১ মাওলানা জুবায়ের, ক্রমিক নম্বর ৩৫ বাবু গাজী, ক্রমিক নম্বর ৬০ জালাল আহম্মেদ এ সাত জন সম্পর্কে প্রদত্ত তথ্য সঠিক নয়।

এছাড়াও ঢাকার বাইরে মারা গেছেন ৬ জন এবং ১১ জন জীবিত কিংবা মৃত সে সম্পর্কে কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। কাল্পনিকভাবে এদের নাম তালিকার সন্নিবেশিত করা হয়েছে মর্মে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ক্রমিক নম্বর ১ এ বর্ণিত সিদ্দিকুর রহমান ছিলেন পুলিশের রিকুইজিশন নেওয়া বাস ড্রাইভার। তাকে গত ৫ মে হেফাজত কর্মীরা আক্রমণ করে হত্যা করে। এ ব্যাপারে জনৈক সাইবুদ্দিন বাদী হয়ে পল্টন থানায় একটি মামলা রুজু করেন।

ওই রাতে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার কথাও প্রতিবেদনে অস্বীকার করা হয়েছে। বলা হয়েছে, সিটি কর্পোরেশন ওই এলাকায় বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেনি। বরং হেফাজত কর্মীরা তাণ্ডব চালিয়ে রাস্তার বৈদ্যুতিক পোস্ট ও তার ধ্বংস করায় বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

অধিকারের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ছবি সর্ম্পকে বলা হয়েছে, বিভিন্ন স্থানে ভিন্ন ভিন্ন ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের মৃতদেহের ছবি সংগ্রহ করে প্রযুক্তির মাধ্যমে তা একত্রিত করে প্রকাশ করে।