অপরাধ ঢাকা শিক্ষাঙ্গন

রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ,সাংবাদিক সহ ৩শতাধিক আহত

IMG0436Aমদন (নেত্রকোণা) থেকে নুরুল হক রুনু:  নেত্রকোণা জেলার মদন উপজেলায় সরকারী হাজী আব্দুল আজিজ খান ডিগ্রী কলেজে স্নাতক কোর্সের ফরম পূরনে অতিরিক্ত ফি আদায়কে কেন্দ্র করে শনিবার সকাল ৯ ঘটিকায় কলেজে ছাত্র/ছাত্রীরা কলেজ ক্যাম্পাসে প্রতিবাদ মিছিল করে। মূলত উপজেলা সদর মগড়া নদী দ্বারা দুই ভাগে বিভক্ত। মিছিলে অধ্যক্ষের অনুসারী কিছু ছাত্রনামধারী বহিরাগত ছাত্র মিছিলকারীদের উপর হামলা করে। হামলায় মগড়া নদীর পশ্চিম পাড়ের কবির, পিপুল ও হুমায়ুনকে পিটিয়ে আহত করে। এই খবর মগড়া নদীর পশ্চিম পাড়ের লোকজনের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে এরই প্রতিবাদে উভয় পাড়ের লোকজনের মধ্যে শহীদ আব্দুল কুদ্দুছ মগড়া সেতুর উপর ব্যাপক সংঘর্ষ বাঁধে। মগড়া নদীর পূর্বপাড়ের লোকজন মদন থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা (তদন্ত) স্বপন চন্দ্র সরকার এর সহায়তায় মগড়া নদীর পূর্ব পাড়ের লোকজন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পশ্চিম পাড়ের লোকজনের উপর হামলা চালায়। হামলার সময় পুলিশ ৬-৭ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে। এতে পশ্চিম পাড়ের দুইজন পরাগ (২২) ও হুমায়ুন (২৫) আহত হয়। উভয় পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩শতাধিক লোক আহত হয়েছে। এর মধ্যে গুরুতর আহত এনামুল (৩০), কাইয়ুম (৩৫), সোহেল (২০), জুয়েল (২২), হুমায়ুন (২২), মুখলেছ (২৮) উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপতাালে প্রেরণ করা হয়। পুলিশের পক্ষ থেকে ২জন এস.আই সহ ৩জন পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছে বলে জানা যায়। রাবার বুলেটের কথা ওসি মদন (তদন্ত) কে জিজ্ঞাসা করলে দুই রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়া হয়েছে বলে তিনি জানান। ৩ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রন করতে নেত্রকোণা জেলা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুমিনুল হক এর নেতৃত্বে দাঙ্গা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ঘটনাস্থলে পৌছান। উপজেলা ভরপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুল আওয়াল দুপুর ১২ ঘটিকা থেকে রাত ১২ ঘটিকার পর্যন্ত উপজেলার পৌর শহরে ১৪৪ ধারা জারি করেন। মগড়া নদীর পশ্চিমপাড়ের এলাকাবাসী মদন থানা পুলিশের অবহেলায় উক্ত ঘটনা ঘটেছে এ নিয়ে মিছিল বের করলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পুলিশের অবহেলার বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে এলাকাবাসীকে আশ্বস্থ করেন। মদন হাসপাতলের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আব্দুল কুদ্দুছ জানান, এ পর্যন্ত শাতাধিক আহত রোগী ভর্তি রয়েছে। আবার অনেকেই প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এরই জের ধরে মদন আদর্শ পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু হান্নন তালুকদার মগড়া নদীর পশ্চিমপাড়ের লোক হওয়ায় বিদ্যালয়ের ভিতরে প্রবেশ করে মগড়া নদীর পূর্ব পাড়ের লোকজন তাকে শারিরীক লাঞ্চিত করে তার মটর বাইকটি পুড়িয়ে ফেলে। পরে পুলিশ প্রহরায় নদীর পশ্চিম পাড়ে আসেন। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ কখনও পর্যন্ত কোন পক্ষই থানায় মামলা দায়ের করেনি।