ধর্ম হটনিউজ স্পেশাল

দেনমোহর স্ত্রী মাফ করে দিলে কী স্বামী মাফ পাবেন?

হটনিউজ ডেস্ক:

ইসলাম যে সব নিয়ম-কানুন আরোপ করেছে, তন্মধ্যে দেনমোহর উল্লেখযোগ্য। পবিত্র কুরআন ও হাদিসে দেনমোহরকে অবহেলা না করতে জোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বিয়ের শর্ত হলো- দেনমোহর, স্ত্রীর ভরণপোষণ, তার ইজ্জত-আবরুর হেফাজত ইত্যাদি।

সুতরাং যথাসময়ে এসব পূরণ করতে হবে। পবিত্র কুরআনে দেনমোহর আদায়ের বিষয়ে ইরশাদ হয়েছে, ‘তোমরা নারীদেরকে সন্তুষ্টচিত্তে মোহর প্রদান করো। ’ -সূরা নিসা, আয়াত-৪।

এ সম্পর্কে জামিয়া আম্বরশাহ কারওয়ান বাজার মাদরাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস মুফতি তায়্যিব আহমাদ বলেন, দেনমোহর স্বামীদের ওপর ওয়াজিব করা হয়েছে। যদি কোনো স্বামী জীবিত থাকা অবস্থায় এই দেনমোহর আদায় না করেন তাহলে তিনি ঋণগ্রস্ত হয়েই মৃত্যু বরণ করলেন। যা আল্লাহতায়ালাও মাফ করবেন না।

তিনি বলেন, দেনমোহর দুই প্রকার। একটি তাৎক্ষণিক দেনমোহর, যা স্ত্রীর চাওয়ামাত্র পরিশোধ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে স্ত্রী তাৎক্ষণিক দেনমোহর না পাওয়া পর্যন্ত স্বামীর সঙ্গে দাম্পত্য জীবন শুরু করতে অস্বীকার করতে পারেন।

আরেকটি হচ্ছে বিলম্বিত দেনমোহর। বিলম্বিত দেনমোহর বিবাহবিচ্ছেদের সময় দিতে হয়। এ ছাড়া স্বামী সালিসি পরিষদের অনুমতি ছাড়া দ্বিতীয় বিয়ে করলে স্ত্রীকে বিলম্বিত দেনমোহর পরিশোধ করতে হবে।

সাধারণত দেনমোহরের কিছু পরিমাণ বিয়ের সময় তাৎক্ষণিক দেনমোহর হিসেবে দেওয়া হয় এবং তা কাবিননামায় লিখিত থাকে। বাকিটা বিলম্বিত দেনমোহর হিসেবে ধরা হয়।

মুফতি তায়্যিব আহমাদ আরও বলেন, দেনমোহর স্বামীর কাছে স্ত্রীর অধিকার। এটি স্বামীর সামর্থ অনুযায়ী বিয়ের সময় স্ত্রীর জন্য দেনমোহর ধার্য করা হবে। তবে স্ত্রী যদি স্বামীকে দেনমোহর মাফ করে দেন তাহলে স্বামী মাফ পেয়ে যাবেন।

দেনমোহর ধার্যের বিষয়ে মুফতি তায়্যিব আহমাদ বলেন, এটি উভয় পক্ষের অভিভাবকরা আলোচনা করে ধার্য করবেন। তবে দেনমোহরের বিষয়ে হাদিসে মোহরে ফাতেমির বিষয়টি এসেছে। যা হজরত আলী (রা.) বিয়ের সময় হজরত ফাতেমা (রা.) কে দিয়েছিলেন। সেখানে ৫শ দিরহাম ধার্য করা হয়। যা বর্তমান বাজার মূল্য হবে এক লাখ ৩১ হাজার টাকার মতো। তবে মোহরে ফাতেমি ধার্য করতে হবে এমন কোনো বিষয় নেই। আলোচনার মাধ্যমেই এই মোহর ধার্য করা উচিত।