আন্তর্জাতিক জাতীয় ঢাকা প্রধান খবর

নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনার প্রস্তুতিসভা পণ্ড

New-York-bg20130829154549সজীব বিশ্বাস,হটনিউজ২৪বিডি.কম,নিউইয়ক: নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের কর্তৃত্ব নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চরমে উঠেছে। এর জের ধরে দুই পক্ষের হাতাহাতিতে প্রধানমন্ত্রীর জন্য আয়োজিত সংবর্ধনার প্রস্তুতিসভাটি পণ্ড হয়ে গেছে।

স্থানীয় সময় বুধবার রাতে নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা কমিটি গঠনের লক্ষে ডাকা প্রস্তুতিসভা গণ্ডগোলে কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই পণ্ড হয়ে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধস্তাধস্তি, হাতাহাতি, চেয়ার ছোড়াছুড়িতে সভাটি পণ্ড হয়ে যায়।
সংগঠনের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান দাবি করেন, সভাটি পণ্ড নয়, আনুষ্ঠানিকভাবেই শেষ হয়েছে। খুব শিগগির সংবর্ধনা কমিটিও ঘোষণা করা হবে।

উল্লেখ্য, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৬৮তম অধিবেশনে যোগ দিতে আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউইয়র্কে পৌঁছাবেন। ২৭ সেপ্টেম্বর তিনি সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণ দেবেন। ২৮ সেপ্টেম্বর বিকেলে প্রধানমন্ত্রীকে নিউইয়র্কে সর্বজনীন সংবর্ধনা দেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রীর এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি অত্যন্ত ব্যয়বহুল হওয়ায় আগে থেকে প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়। সংগ্রহ করা হয় তহবিল।

অন্যান্যবারের মতো এবারও প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা কমিটি গঠনকল্পে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বুধবার রাতে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে এক প্রস্তুতি সভা আহ্বান করা হয়।

জানা গেছে, এ বছর প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা কমিটি গঠন নিয়ে গত ক’দিন ধরে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে নানান প্রস্তাব আসছে। একটি অংশ বর্তমান সহ-সভাপতি নজমুল ইসলামকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের প্রধান সমন্বয়কারী করার জন্য তদবির চালাচ্ছেন।
অন্যদিকে অন্য একটি অংশ বর্তমান যুগ্ম সম্পাদক নিজাম চৌধুরীকে বরাবরের মত প্রধান সমন্বয়কারী করার পক্ষে।

এসব বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে বুধবার প্রস্তুতি সভা ডাকা হয়। স্থানীয় সময় রাত ৮টা ১০মিনিটে সভা শুরু হলেও বিকেল থেকেই সভাস্থলের পাশে দুই পক্ষের সমর্থকদের মহড়া চলতে থাকে। পরিস্থিতি আঁচ করতে পেরে সংগঠনের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান সভাস্থলে এসে মঞ্চে না বসে দর্শকসারিতে চেয়ার গোল করে বসে সভা শুরু করেন। তিনি ঘোষণা দেন, প্রস্তুতি সভাটি কোনো রাজনৈতিক সভা নয় এবং কেউ কোনো অতিথি নয়। প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা সফল করতে তিনি সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমানের সঞ্চালনে প্রস্তুতি সভা শুরু হলে দলের নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখতে শুরু করেন। প্রায় এক ঘণ্টা সভা চলার পর যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্যপদ থেকে সদ্য অব্যাহতি দেওয়া জসীমউদ্দিন খান মিঠু বক্তব্য দিতে শুরু করলে নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ কে এম আলমগীর তাকে বাধা দেন। এসময় তার স্ত্রী ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আইরিন পারভিন মিঠুর হাত থেকে মাইক কেড়ে নেন।

বক্তব্যে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষ ব্যাপক হট্টগোল শুরু করেন। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে ধস্তাধ্বস্তি, হাতাহাতি ও মারপিট শুরু হয়। পরিস্থিতির চরম অবনতির আশঙ্কায় সংগঠনের সভাপতি ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ সভাস্থল ছেড়ে চলে যান।

এ ঘটনার পর এ কে এম আলমগীর দাবি করেন, মিঠু সংগঠন থেকে বহিষ্কৃত। তিনি আওয়ামী লীগের কেউ নন। এজন্য তাকে বক্তব্য দিতে বাধা দিয়েছেন।

অন্যদিকে মিঠু দাবি করেন, তাকে কার্যকরী সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে, আওয়ামী লীগ থেকে নয়। তাছাড়া এটি আওয়ামী লীগের সভা ছিল না।

প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত সংগঠনের শ্রম সম্পাদক ও জাতীয় শ্রমিক লীগের আর্ন্তজাতিক সমন্বয়কারী আব্দুর রহিম বাদশা বাংলানিউজকে বলেন, দু’পক্ষের হট্টগোলের কারণে প্রস্তুতি সভাটি কার্যত পণ্ড হয়ে গেছে।