জাতীয় রাজশাহী

ভিজিএফ বরাদ্দ স্থগিত

download (2)খাইরুল ইসলাম বাসিদ, পাবনা:পাবনার আটঘরিয়ায় বিএনপি সমর্থিত ইউ’পি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত ইউ’পি সদস্যদের দ্বন্দ্বের জের ধরে উপজেলার দেবোত্তর ইউনিয়নের ২ হাজার ১৬৫ জন অসহায় দুস্থ মানুষ ভিজিএফ কার্ডের অনুকুলে বরাদ্দ চাল পাচ্ছে না।

জানা গেছে, চলতি বছরের ২৩ জুলাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ের ৯৯০নং স্মারকে দেবোত্তর ইউনিয়নে মানবিক সহায়তা ভিজিএফ কমিটির মাধ্যমে ওয়ার্ড ভিত্তিক বিনামূল্যে ২ হাজার ১শ’ ৬৫ জন দুস্থকে ভিজিএফ কার্ড বরাদ্দ করা হয়।

অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে যোগাযোগ করা হলে ৭নং ওয়ার্ড সদস্য সাইফুল ইসলাম বলেন, ৭শ’টি ভিজিএফ কার্ড চেয়ারম্যান নিজের জন্য রাখবেন এমনভাবেই তিনি তালিকা তৈরি করেছেন। আমাদের (মেম্বরদের) বক্তব্য তিনি একাই কেন ৭শ’টি কার্ড নিজের জন্য রাখবেন। দরিদ্রদের বরাদ্দ সব সদস্যের মাধ্যমেই বিতরণ হওয়া উচিত। কিন্তু চেয়ারম্যান এ সিদ্ধান্ত মেনে নেননি।

এদিকে তিনি অভিযোগ করে বলেন, চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক মোল্লা একজন দুর্ণীতিবাজ। দ্ররিদ্র মানুষের চাউল/গম বিক্রি করে তিনি এর আগে অনেক টাকা আতœসাৎ করেছেন।

এ ব্যাপারে দেবোত্তর ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুল মালেক মোল্লা বলেন, দুস্থদের ভিজিএফ কার্ড বিতরণের জন্য ইউনিয়নের ১২ জন সদস্য নিয়ে ওয়ার্ড পর্যায়ে ভাগ করে তালিকা তৈরির জন্যে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় ইউনিয়ন পরিষদের সভায়। কিন্তু ৭ জন ইউপি সদস্য এ সিদ্ধান্তের বাইরে অবস্থান নেন। এ কারণে ভিজিএফ কার্ডের অনুকুলে বরাদ্দ চাল প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে না।

অপরদিকে চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক অভিযোগ করে বলেন, আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম রতন দলীয়ভাবে বিতরণের জন্য ১ হাজার ভিজিএফ কার্ড দাবি করলে জটিলতার সৃষ্টি হয়।

আওয়ামী লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম রতন এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, চেয়ারম্যান মালেক ১ হাজার ২শ’টি কার্ড নিজের হাতে রেখে মেম্বারদের ৫০/৬০ টি করে দিতে চাওয়ায় চেয়ারম্যান-মেম্বরদের মধ্যেই দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সৈয়দ রবিউল ইসলাম বলেন, ভিজিএফ কার্ডের বিভাজনের তালিকা নিয়ে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগ তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। আপাতত কার্ড বরাদ্দ স্থগিত রয়েছে। তদন্ত শেষে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

উপজেলা ভিজিএফ কমিটির সভাপতি আটঘরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ইশারত আলী বলেন, দেবোত্তর ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে মেম্বর ও দলীয় লোকদের কোন্দলের কারণে ভিজিএফ বরাদ্দ স্থগিত রয়েছে।