অপরাধ চট্টগ্রাম জাতীয়

অবৈধভাবে হাজার হাজার মণ ইলিশ পাচার হয়ে যাচ্ছে

hilsha_ilish_fishশাহ মোহাম্মদ মাকসুদুল আলম, চাঁদপুর:ইলিশের আকাশচুম্বি দাম আর সংকটের কারণে এই ভরা মৌসুমেও চাঁদপুরের সাধারণ মানুষ ইলিশ মাছ খেতে না পারলেও এই চাঁদপুর থেকেই অবৈধপথে প্রতিদিন হাজার হাজার মণ ইলিশ পাশের দেশ ভারতে পাচার হয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে চাঁদপুর সদর উপজেলার হরিণা মাছঘাট ও শরীয়তপুর ফেরিঘাট হতে ইলিশের চালান ভারতীয় সীমান্ত এলাকা দিয়ে পাচার হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মৌসুমের শেষ দিকে এসে চাঁদপুর এবং আশ-পাশের নদীগুলোতে ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করেছে। জেলেদের আহরিত বড় আকারের বিপুল পরিমাণ ইলিশ হরিণা ঘাটের আড়ৎ থেকে জনৈক ইউনুছ গাজী ও মোক্তার গাজী নামে দুইজন পাইকার নিজের তত্ত্বাবধানে ককসিটে প্যাকেট করে সে মাছ পাচার করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। হরিণা ঘাটে দক্ষিণ অঞ্চলের ফেরি পারাপারের সময় গাড়িতে ওই ইলিশের প্যাকেট রাতের অন্ধকারে তুলে দেয়া হয়। এছাড়া অনেক মাছ ঝুড়িতে করে ট্রলারযোগে নদীর অপর প্রান্তে শরীয়তপুর ঘাটে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে যশোর ও মাদারীপুরের ৭-৮জন পাইকার ইউনুছ গাজীর মাধ্যমে বড় আকারের ইলিশ সংগ্রহ করে যশোর ও সাতক্ষিরা সীমান্ত এলাকায় চালান করছে। ওই সূত্রটি আরো জানায়, সরকার দেশের মানুষ যাতে ইলিশ মৌসুমে কম দামে ইলিশ খেতে পারে, সে লক্ষ্যে বিদেশে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ রেখেছে। এ সুযোগে একটি চক্র হরিণা, আখনেরহাট, বহরিয়া, লক্ষ্মীপুর, ঈদগাহ বাজার, আলুর বাজার, ঈশান বালা, কাটাখালি এলাকার মৎস্য আড়ৎগুলো থেকে ভারতে পাচারের জন্য অনেক ইলিশ মাছ সে জায়গায় মজুদ করে চোরা পথে পাচার করে দিচ্ছে। আলুর বাজারে একটি নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি থাকা সত্ত্বেও হরিণা এবং শরীয়তপুর ফেরিঘাট এলাকা দিয়ে সড়ক পথে ইলিশ পাচার হচ্ছে।