আন্তর্জাতিক

পৃথিবীর সবচেয়ে বয়স্ক শিশুটি প্রায় মায়ের সমবয়সী

যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি রাজ্যের এক শিশু জন্ম নিয়েই ইতিহাস রচনা করেছে। দীর্ঘ ২৮ বছর কন্যা শিশুটিকে ভ্রূণ অবস্থাতেই জমাট রাখা হয়েছিল। ১৯৯২ সালের অক্টোবর মাসে থেকে। তারপর ২৯ বছর বয়সী এক মার্কিন তরুণী টিনা গিভসনের গর্ভে প্রতিস্থাপন করা হয় এ বছরেই।

সবশেষ গেলো ২৬ অক্টোবর তার গর্ভেই পূর্ণতা লাভ করে জন্ম নেয় শিশুটি। শিশুটির নাম রাখা হয়েছে মলি গিভসন।
জানা গেছে, এতো পুরোনো ভ্রূণ প্রথমবার সফলভাবে মাতৃদেহে বেড়ে উঠে জন্মলাভ করলো। অবাক করা ব্যাপার হলো শিশুটির জন্মদাত্রী টিনা জন্মেছিলেন মলিকে ভ্রূণ অবস্থায় সংরক্ষণ রাখায় মাত্র ১৮ মাস আগে।
এটি সহজে ভুলে থাকার মতো বিষয় নয়। কিন্তু, আমাদের কাছে মলি হলো ছোট বিস্ময়কর সোনামণিটি। নিউইয়র্ক পোস্টকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এভাবেই বলছিলেন টিনা।

এর আগে ২৪ বছর বয়সী এক ভ্রূণ থেকে ২০১৭ সালে এমা ওয়ারেন গিভসন নামের এক শিশুর জন্ম হয়। এমা আসলে মলির বড় বোন। অর্থাৎ, একই মা জন্ম দিয়েছেন সবচেয়ে বয়সী দুই শিশুকে! যা পৃথিবীর আর কোথাও ঘটেছে কিনা জানা যায়নি।
বাস্তবের প্রয়োজনীয়তা গিভসন পরিবারকে এভাবে শিশু জন্মদানে বাধ্য করে। কারণ হলো স্বামী-স্ত্রী’র একক পরিবারটি দীর্ঘদিন ধরেই অনুর্বরতার কারণে সন্তান জন্মদানে ব্যর্থ হচ্ছিলেন। ঠিক এমন সময়ে দুটি জমাট ভ্রূণের কথা জানতে পারেন তারা।

আরও একটি বিষয় হলো বাস্তবেও ভ্রূণ দুটি ছিল দুই বোন। মলি ও এমার প্রকৃত পিতামাতাই ওদের দান করেন নিঃসন্তান দম্পত্তিদের জন্য। গোপনীয়তার শর্ত থাকায় প্রকৃত মাতা-পিতার নাম গোপন রাখা হয়েছে।