অপরাধ ঢাকা হটনিউজ স্পেশাল

বসাচ্ছেন ফেরদৌস খান কোকোর টাকায় ‘ভাগ’

KoKo-0120130827152328আছাদুজ্জামান,ঢাকা, ২৭ আগস্ট: কোকোর পাচার করা টাকা সিঙ্গাপুর থেকে ফেরত আনার পর তাতে ‘ভাগ’ বসাচ্ছেন ফেরদৌস আহমেদ খান। তিনি একটি কনসালটেন্সি ফার্মের মালিক। মঙ্গলবার দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান মো. বদিউজ্জামান এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেছেন। দুদক চেয়ারম্যান জানান, ফেরদৌস আহমেদ খান কনসালটেন্সি ফি হিসেবে ফেরত আনা মোট টাকার শতকরা ৩০ ভাগ টাকা দাবি করছেন। কিন্তু দুদক চেয়ারম্যান জানান, তারা মোট টাকার ১০% দিতে চাইছেন ফেরদৌস আহমেদ খানকে। জানা গেছে, এ হিসেবে তিনি মোট ২ কোটি ১০ লক্ষ ৫ হাজার ৫৩৯ টাকা পাচ্ছেন। এ পর্যন্ত তিন দফায় কোকোর পাচারকৃত মোট ২১ কোটি ৫৫ হাজার ৩৯৪ টাকা ফেরত আনা হয়েছে। দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘ফেরদৌস আহমেদ খানের মালিকানাধীন পরামর্শক প্রতিষ্ঠান অক্টোখান দুদকের কনসালটেন্ট ফার্ম হিসেবে কাজ করে। এ জন্য ফেরদৌস আহমেদ খান আমাদের কাছে ৩০% দাবি করেছিল। কিন্তু আমরা তাতে রাজি হইনি। তাছাড়া তিনি পারিশ্রমিক হিসেবে এ টাকা পেতেই পারেন।’ তবে টাকা ফিরিয়ে আনার আগে তার সঙ্গে কোন চুক্তি হয়েছিল কিনা জানতে চাইলে বদিউজ্জামান হটনিউজকে জানান, ‘চুক্তি না থাকলেও তিনি এটা পেতে পারেন। তাছাড়া ওনার দাবি আরো বেশি ছিল। তা তো দিচ্ছি না।’

দুদকের মহাপরিচালক জিয়াউদ্দিন আহমেদ হটনিউজকে জানান, ফেরদৌস আহমেদ খানের মালিকানাধীন পরামর্শক প্রতিষ্ঠান অক্টোখান কনসালটেন্ট ফার্মকে ২০০৯ সালের ৪ জানুয়ারি বিদেশ থেকে দেশে টাকা ফেরত আনার ক্ষেত্রে পরামর্শক হিসেবে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয় কমিশন।

২০১২ সালের ৪ জানুয়ারি ওই চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে। ফেরদৌস আহমেদ খান আবারো তিন বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করার আবেদন করেছেন। চুক্তি নবায়ন করার বিষয়টি বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

জানা গেছে, দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪- এ একম কোন কনসালটেন্ট নিয়োগের বিষয়ে সুনিদিষ্ট কোন নির্দেশনা দেয়া নেই। এ আইনের ১৭ এর (ট)’তে কমিশনের কার্যাবলি হিসেবে বলা হয়েছে- ‘দুর্নীতি প্রতিরোধের জন্য প্রয়োজনীয় বিবেচিত অন্য যে কোন কার্য সম্পাদন করা’ এবং এ আইনের ১৯ এর (চ)’তে অনুসন্ধান বা তদন্তকার্যে কমিশনের বিশেষ ক্ষমতার বিষয়ে বলা হয়েছে।

দুদক সূত্র জানায়, অক্টোখান’কে পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেয়ার বিষয়টি ২০১৩ সালের ১৩ মার্চ কেবিনেটে জানানো হয়। তারা এ বিষয়ে কোন উত্তর দেননি। দুদক স্বাধীন সংস্থা বিধায় এ বিষয়ে কমিশনকে সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয়।

হটনিউজকে