অপরাধ ঢাকা

বাবা মা হত্যা মামলায় মেয়ে ঐশীর জামিন নাকচ

oisi.jpg_11584_0.oisiআদালত প্রতিবেদক : বাবা-মা হত্যা মামলায় মেয়ে ঐশী রহমানের জামিন ও চিকিৎসা দেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আবেদন খারিজ করে দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে তদন্ত কর্মকর্তার উপস্থিতিতে হত্যাকা-ের ঘটনাস্থল পরিদর্শন চেয়ে করা আবেদনও নাকচ করা হয়েছে। ঢাকার কিশোর আদালতের বিচারক আনোয়ার ছাদাত সন্ধ্যায় এ আদেশ দেন। জামিন খারিজের আদেশে বিচারক উল্লেখ করেন, ঐশী নিজে তার বাবা-মাকে হত্যা করেছেন বলে আদালতের কাছে স্বীকার করেছেন। সজ্ঞানে আসামি ঐশী তার বাবা-মাকে হত্যা করেছে। যে কারণে এই মুহূর্তে তার জামিন আবেদন নাকচ করা হলো। চিকিৎসা সংক্রান্ত আবেদন খারিজের আদেশে বিচারক উল্লেখ করেন, ‘ঐশী মানসিকভাবে অসুস্থ তার প্রমাণ করার জন্য কোনও ধরণের চিকিৎসা সনদ আদালতে দাখিল করা হয়নি। যে কারণে এ আবেদন খারিজ করা হলো।’ চিকিৎসার আবেদনে উল্লেখ করা হয়, ঐশী মানসিকভাবে অসুস্থ। স্বীকারোক্তি দিতে তাকে বাধ্য করা হয়েছে। তার চিকিৎসার জন্য মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করার জন্য প্রয়োজনীয় আদেশ দেয়া হোক। জামিন চেয়ে ঐশীর আইনজীবী প্রকাশ রন্জন বিশ্বাস ও মাহবুব হাসান রানা আদালতকে বলেন,‘।জামিন আদালতের বিবেচনা মুলক অধিকার। এটি একটি আরাম দায়ক প্রক্রিয়া। আসমি ঐশীকে জামিন দিলে সে স্বভাবিক ভাবে মুক্ত জিবন জাপন করতে পারবে এবং তাকে জামিন দিলে আদালতের আদেশ মোতাবেক হাজিরা প্রদান করবে পলাতক হবে না। তার জামিন দেয়া হোক।’ গত শনিবার ঐশী ও কাজের মেয়ে সুমী আদালতের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। বর্তমানে ঐশী ও সুমি গাজীপুরের কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে রয়েছেন। গত শনিবার তাদের সেখানে পাঠানো হয়। গত ১৪ আগস্ট রাজধানীর চ্যামেলীবাগের বাসায় পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমান খুন হন। মাহফুজ পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের রাজনৈতিক শাখায় কর্মরত ছিলেন। স্ত্রী স্বপ্না এবং দুই ছেলে-মেয়ে ও এক শিশু গৃহকর্মী নিয়ে চ্যামেলীবাগের বাসায় থাকতেন তিনি। ঐশী ধানমন্ডির অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ও লেভেলের শিক্ষার্থী । নিহত দম্পত্তিদের একমাত্র ছেলে ঐহী রহমান রাজারবাগ পুলিশ লাইনের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র।