জাতীয় ঢাকা

বিএসএফের ধর্ষণের শিকার বাংলাদেশি নারী

Dhorson20130823090113হটনিউ২৪বিডি.কম,নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা, ২৩ আগস্ট : সীমান্ত পার হওয়ার সময় এক বাংলাদেশি নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) বিরুদ্ধে।
এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি দোষী বিএসএফ সদস্যদের শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের মানবাধিকার সংস্থা ‘বাংলার মানবাধিকার সুরক্ষা মঞ্চ’ (মাসুম) ।
মাসুমের সাধারণ সম্পাদক কিরিটি রায় শুক্রবার ভারতের জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে পাঠানো এক চিঠিতে জানান, গত ১১ জুলাই বাংলাদেশ সীমান্ত সংলগ্ন ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার খেদাপাড়া গ্রামে ধর্ষণের ওই ঘটনা ঘটে।
মুম্বাই থেকে বাংলাদেশের নড়াইল জেলার মারোলিয়া গ্রামে নিজেদের বাড়ি ফেরার পথে স্বামী ও ছয় বছর বয়সী ছেলের সামনেই ৩০ বছর বয়সী ওই বাংলাদেশি নারী ধর্ষণের শিকার হন।
এ ঘটনার পর ভারতে অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে আদালত ওই নারী ও তার স্বামী সন্তানকে কারাগারে পাঠায়।
চিঠিতে বলা হয়, ধর্ষিত ওই নারী স্বামীর সঙ্গে মুম্বাইয়ে থাকতেন। সেখানে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করতেন তারা।
মানবাধিকার সংস্থার চিঠিতে বলা হয়, কোনো নারী বা শিশু ‘ভিকটিম’ হয়ে থাকলে তাদের ক্ষেত্রে অবৈধ অনুপ্রবেশের আইন প্রযোজ্য হবে না বলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা আছে। তারপরও বিধি ভেঙে ওই নারী ও তার ছেলেকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
ধর্ষণের অভিযোগে ওই নারী বিএসএফ কনস্টেবল সুরজিত দেবভার্মার বিরুদ্ধে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে বলেও কিরিটি রায় তার চিঠিতে জানান।

এছাড়া সীমান্তে সব ধরনের মানবাধিকার লংঘনের ঘটনাকে বিচারের আওতায় আনারও দাবি
জানিয়েছে পশ্চিমবেঙ্গের এ মানবাধিকার সংস্থাটি।