খেলা হটনিউজ স্পেশাল

দেশ ও বিশ্ব ক্রিকেটে এক মহান খেলোয়াড় ছিল ধোনি

হটনিউজ ডেস্ক:


কিংবদন্তি উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান মহেন্দ্র সিং ধোনির আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার ঘোষণার পর বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীও ধোনির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করলেন। গত বছরের বিশ্বকাপের পরে টিম ইন্ডিয়ার জার্সিতে আর দেখা যায়নি ধোনিকে। গতকাল শনিবার (১৫ আগস্ট) আইপিএল প্র্যাকটিস শুরু করার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেন ৩৮ বছর বয়সি ভারতীয় এই ক্রিকেটার।

ধোনির অবসর নিয়ে সৌরভ বলেন, এটি একটি যুগের সমাপ্তি। দেশ ও বিশ্ব ক্রিকেটে এক মহান খেলোয়াড় ছিল ধোনি। ধোনির নেতৃত্বের গুণাবলি এমন কিছু ছিল, বিশেষ করে সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটে, যা অন্যদের থেকে আলাদা৷ প্রথমদিকে ওয়ানডে ক্রিকেটে ধোনির ব্যাটিং বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল। ওর স্বভাব এবং নিখুঁত স্বাভাবিকতা দারুণ। তবে প্রতিটি ভালো জিনিস একদিন শেষ হয়। এটি ছিল একদম উজ্জ্বল।

২০০৪ সালে সৌরভ গাঙ্গুলীর নেতৃত্বেই জাতীয় দলে অভিষেক হয়েছিল ধোনির। ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে ধোনিই একমাত্র অধিনায়ক যিনি আইসিসি’র সকল ট্রফি জিতেছেন। তার নেতৃত্বে ভারত ২০০৭ সালে আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপ চাম্পিয়ন হয়। জো’বার্গে পাকিস্তানকে হারিয়ে প্রথম টি-২০ বিশ্বকাপ জেতে ভারত। তারপর ২০১১ সালে ওয়ানডে ক্রিকেট বিশ্বকাপ এবং ২০১৩ সালে আইসিসি চাম্পিয়ন ট্রফি জেতে ধোনির ভারত। এছাড়াও ২০১০ এবং ২০১৬ সালে এশিয়া কাপ যেতে ভারত। নেতা ছিলেন ধোনি।

গত বছর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দেশের জার্সিতে শেষ ম্যাচ খেলেছেণ তিনি। সেটি ছিল তার ৩৫০তম ওয়ানডে ম্যাচ। ওয়ানডে ফর্ম্যাটে ৫০.৫৭ গড়ে ১০টি সেঞ্চুরি এবং ৭৩টি হাফসেঞ্চুরিসহ ১০,৭৭৩ রান রয়েছে ধোনির ঝুলিতে। ওয়ানডে ক্রিকেটে পঞ্চম ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ১০,০০০ রানের মাইলস্টোন পেরিয়েছেন ধোনি। এছাড়া ভারতের হয়ে ৯৮টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন ধোনি। ১২৬.১৩ স্ট্রাইকরেটে ১৬১৭ রান করেছেন সাবেক ভারত অধিনায়ক।

ধোনি টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছিলেন ৬ বছর আগে। ২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়া সফরে মেলবোর্ন টেস্টের ঠিক আগে দীর্ঘতম ফর্ম্যাট থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করেন ধোনি। তার অবসরে বিরাট কোহলির হাতে টেস্টের নেতৃত্বের ব্যাটন তুলে দেওয়া হয়। আর ২০১৭ সালে জানুয়ারিতে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজের ঠিক আগে নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ান ধোনি।