অর্থ ও বাণিজ্য ঢাকা

পেঁয়াজের দাম কমে আসছে

1376744425. অর্থনৈতিক প্রতিবেদক,ঢাকা, ২৩ আগষ্ট: টিসিবি’র পেঁয়াজ আমদানির খবরে কেজি প্রতি দাম কমেছে ১০-১৫ টাকা পর্যন্ত। আড়তমালিক, পাইকারী এবং খুচরা ব্যবসায়ীরা মজুদকৃত পেঁয়াজ বাজারে ছাড়া শুরু করেছেন।

আর তাই পাইকারী বাজারের পাশাপাশি খুচরা বাজারে দাম কমে আসছে। দাম কমায় পেঁয়াজের বাজারে কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে। দাম পূর্বের মতো স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে হলে সরকারের নেয়া পদক্ষেপগুলো দ্রুত বাস্তবায়ন জরুরি বলে মনে করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

বৃহস্পতিবার কাপ্তান বাজারে খুচরা পর্যায়ে প্রতিকেজি দেশী পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৬০ টাকা এবং আমদানিকৃত ভারতীয় পেঁয়াজ ৭০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। আর শ্যামবাজারে প্রতিকেজি আমদানিকৃত পেঁয়াজ মাণভেদে ৫০-৬০ ও দেশীটি ৫২-৫৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। একদিন আগেও বর্তমান দামের চেয়ে বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে।

জানা গেছে, টিসিবি’র আমদানির খবরে ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজের সরবরাহের বাড়িয়েছেন। এ কারণে পাইকারী বাজারে পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমেছে। তাছাড়া সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের ফলে ভবিষ্যতে আরও দাম কমবে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন। পাইকারী বাজারে দ্রুত দাম কমলেও খুচরা ব্যবসায়ীরা এখনও বিক্রি করছেন বেশি দামে।

ঈদের পর থেকে বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে দাম বাড়ার সর্বোচ্চ রেকর্ড হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে জরুরি বৈঠক করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। আর ওই বৈঠকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ৫ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির প্রক্রিয়া শুরু করে সরকার নিয়ন্ত্রিত সংস্থা ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ টিসিবি। সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, আমদানির এ খবরে দেশে উৎপাদিত মজুদকৃত পেঁয়াজ বাজারে ছেড়ে দেয়া হচ্ছে। এছাড়া ভারতেও পেঁয়াজের দাম হ্রাস পেয়েছে।

সূত্র মতে, সরকারের গোয়েন্দা সংস্থাসহ বাজার মনিটরিং টিম মাঠে নেমেছে। কোন ব্যবসায়ী পেঁয়াজ মজুদ ও মুল্য কারসাজির আশ্রয় নিলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে বাণিজ্য সচিবও ব্যবসায়ীদের এ ব্যাপারে সতর্ক করেছেন। এ অবস্থায় মজুদকৃত পেঁয়াজ বাজারে ছেড়ে দিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

পেঁয়াজ আনতে টিসিবি প্রতিনিধিদল মিয়ানমারে যাচ্ছে

অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে পেঁয়াজ আমদানিতে টিসিবি চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সরওয়ার জাহান তালুকদারের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল আগামী দু’একদিনের মধ্যে মিয়ানমার যাবেন।
এছাড়া পেঁয়াজ আমদানিতে টিসিবি দরপত্র আহ্বান করেছে। সর্বনিম্ন দরদাতারা টিসিবিকে পেঁয়াজ সরবরাহ করতে পারবে। টিসিবির ৫ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানি হবে মিয়ানমার ও ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে।
এ প্রসঙ্গে টিসিবি’র প্রধান তথ্য কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির জানিয়েছেন, সরাসরি, কোটেশন ও টেন্ডার-এই তিন পদ্ধতিতে পেঁয়াজ আমদানি করা হবে। এজন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে।