অপরাধ জাতীয় ঢাকা শিক্ষাঙ্গন

জাবি উপাচার্য টানা দু’দিন অবরুদ্ধ

JU-0120130823010239 জাবি প্রতিনিধি,সাভার, ২৩ আগস্ট: টানা দু’দিন নিজ কার্যালয়ে অবরুদ্ধ আছেন উপাচার্য অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেন। আন্দোলনরত শিক্ষকরা বৃহস্পতিবার দিন শেষে ঘোষণা দিয়েছেন, উপাচার্য পদত্যাগ না করা পর্যন্ত তারা আন্দোলন করে যাবেন।

একই সঙ্গে তাঁরা আগামীকাল শনিবার থেকে টানা তিন দিন বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন।
চলমান সংকট নিরসনে উদ্যোগ গ্রহণের জন্য রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো. আবদুল হামিদকে চিঠি দিয়েছেন উপাচার্য আনোয়ার হোসেন।
চিঠিতে সংকট নিরসনে তাঁর জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে উপাচার্য সাংবাদিকদের বলেন, পদত্যাগে সমস্যার সমাধান হলে অনেক আগেই করতাম। আন্দোলনরত শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের জীবন নষ্ট করে দিচ্ছেন। জাতি এটা দেখছে।
এদিকে শেষ পর্যন্ত সঙ্কট সমাধানের উদ্যোগ নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ ব্যাপারে আন্দোলনরত শিক্ষকদের সঙ্গে যোগাযোগ করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে।
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, বিভিন্ন পর্যায়ে শিক্ষকদের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে। তিনি তাঁদের আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের আহ্বান জানিয়েছেন। শিগগির সমস্যার সমধান হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
এদিকে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছে শিক্ষকদের দুই পক্ষ। সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের দ্বিতীয় তলায় সংবাদ সম্মেলন করে আন্দোলনরত সাধারণ শিক্ষক ফোরাম। অন্যদিকে উপাচার্যপন্থি শিক্ষকদের দল শিক্ষক মঞ্চও পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে বক্তব্য তুলে ধরেছে।
এদিকে আন্দোলনরত শিক্ষক ফোরাম বৃহস্পতিবার বিকেলে আবার সংবাদ সম্মেলন করে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন পদত্যাগ না করা পর্যন্ত তাঁর কার্যালয়ের সামনে অবস্থান এবং আগামীকাল শনিবার থেকে টানা তিন দিন বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বাত্মক ধর্মঘট। তবে পূর্বঘোষিত পরীক্ষা, পরিবহন ও অন্যান্য জরুরি সেবা কাজ এই ধর্মঘটের আওতামুক্ত থাকবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।
এদিকে অবরুদ্ধ অবস্থায়ই উপাচার্যের স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. বিরেণ কুমার বিশ্বাস জানান, অধ্যাপক আনোয়ার হোসেনের উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস থাকলেও এখন তাঁর স্বাস্থ্যের অবস্থা স্থিতিশীল। উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন নিজ কার্যালয়েই নিয়মিত খাওয়া-দাওয়া করছেন এবং বেশির ভাগ সময় চেয়ারে বসেই পার করছেন।
অন্যদিকে উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ার হোসেনের বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০ টায় সর্বশেষ কথা বলেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। তিনি বলেন, পদত্যাগ যদি সঙ্কটের সমাধান হতো তাহলে অনেক আগেই তা করতাম।` তিনি অভিযোগ করে বলেন, `সামনেই নতুন বর্ষে শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা। আজ ওই পরীক্ষা সম্পর্কিত একটি সভাও হওয়ার কথা ছিল। সভাটি না হওয়ায় ভর্তি পরীক্ষা পেছাতে পারে-আশঙ্কা তাঁর ।
এদিকে চলমান এই সঙ্কট সম্পর্কে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বলেন, তারা খুবই উদ্বিগ্ন শিক্ষাজীবন নিয়ে। যত দ্রুত সম্ভব এই সমস্যার সমাধান চায় তারা। তাদের অভিমত হলো, এভাবে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চলতে পারে না। শিক্ষকদের আন্দোলন এই পর্যায়ে আসা উচিত নয়। শিক্ষার্থীদের কথা তাদের ভাবা উচিত।