ঢাকা রাজনীতি

রাজনীতিকরা এগিয়ে না এলে সংঘাত অনিবার্য

3in-120130822100420হটনিউজ২৪বিডি.কম,ঢাকা, ২২ আগষ্ট: রাজনৈতিক সংকট দিন দিন ঘনীভূত হওয়ায় শংকিত দেশের সুশীল সমাজ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।
তারা মনে করেন, সংকট সমাধানে বড় দু’টি রাজনৈতিক দল এগিয়ে না এলে সংঘাত অনিবার্য।
যার পরিনতি হতে পারে ভয়াবহ।
এমনকি ওয়ান ইলেভেনের চেয়েও বড় ধরনের অবাঞ্চিত পরিস্থিতির শিকার হতে পারে প্রিয় মাতৃভমি।
প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ প্রফেসর ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন মনে করেন, বড় দু’টি রাজনৈতিক দলের বিপরিতমূখী অনড় অবস্থান রাজনৈতিক সংকটকে দিন দিন আরো ঘনীভূত করে তুলছে। যেমনটি আমরা দেখছিলাম বিগত চার দলীয় জোট সরকারের আমলে।
তখনও আমরা বেগম খালেদা জিয়ার মূখ থেকে শুনেছি শিশু আর বোবা ছাড়া কেউ নিরপেক্ষ নয়।
তৎকালীন বিএনপি-জামাত জোটের প্রধানমন্ত্রী নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার কি তা বুঝতে চাননি। তখনকার প্রধান বিরোধী দল আওয়ামী লীগের আন্দোলন সংগ্রামকে উপেক্ষা করে চার দলীয় জোট সরকারের একগুয়েমী মনোভাবের পরিনতি কি হয়েছিল তা আমরা দেখেছি।
লগি বৈঠার বিপারীতে ২০০৬ সালের অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে দেশে যে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হলো তার পরিনতি বয়ে আনল ওয়ান ইলেভেন।
আনোয়ার হোসেন মনে করেন, সেই একই অবস্থার পুনরাবৃত্তির আশংকা নিয়ে আমি খুবই শংকিত। সুতরাং অনাকাঙ্খিত সেই পরিস্থিতি এড়াতে হলে সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে। সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব নিয়ে আলোচনার জন্যে এগিয়ে আসতে হবে।
কারণ হাতে সময় আর বেশি নেই। বর্তমান সরকারের মেয়াদ প্রায় শেষ। এখনই উদ্যোগ না নিলে হবেনা। এজন্যে মহান সংসদ হলো উত্তম স্থান। আগামী ১২ সেপ্টেম্বর শুরু হতে যাওয়া অধিবেশনে বিষয়টি উত্থাপন করে সন্তোষজনক সমাধানে পৌঁছানো সম্ভব বলে মনে করেন দেশের এই প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ।
প্রায় একই ভাষায় কথা বলেছেন দেশের অন্যতম ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার-এর সম্পাদক মাহ্ফুজ আনাম। ৭১ টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, প্রধান দু’টি রাজনৈতিক দলের দুই নেত্রীর অদূরদর্শীতার কারনেই আগামীতে দেশ এক সংঘাতময় পরিনতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।
তাদের একগুয়েমী মনোভাব এবং পারষ্পারিক শ্রদ্ধাবোধের অভাবই দেশের রাজনীতিকে কলুষিত করছে বলে মনে করেন মাহফুজ আনাম।
এ ব্যাপারে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. আকবর আলী খান রাইজিংবিডিকে জানান, আমি আগেও বহুবার বলেছি এখনো বলছি পরবর্তী নির্বাচনকালীন সরকার কি হবে তা ঠিক করতে হবে বড় দু’টি রাজনৈতিক দলকে আলোচনায় বসে।
যদি তারা তা করতে ব্যর্থ হন তার পরিনতি কি হবে তা আমি কেন দেশবাসী সবাই উপলব্দি করতে পারছেন।