সারাদেশ হটনিউজ স্পেশাল

স্টাফদের যৌন হয়রানি থেকে বাঁচতে কিশোরীর নদীতে ঝাঁপ

হটনিউজ ডেস্ক:

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার বেতুয়া থেকে ঢাকাগামী একটি লঞ্চের স্টাফদের যৌন হয়রানি থেকে বাঁচতে এক কিশোরী নদীতে ঝাঁপ দিয়েছে।

এ ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। গেল শনিবার সন্ধ্যায় এমভি কর্ণফুলী-১৩ লঞ্চে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই কিশোরীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে জেলেরা। তাকে তজুমদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল রোববার তজুমদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মেয়েটি নদীতে লাফিয়ে পড়লেও তাকে উদ্ধার না করে লঞ্চটি ঢাকায় চলে যায়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই কিশোরী সাংবাদিকদের জানায়, তার বাড়ি তজুমদ্দিন উপজেলার তেলিয়ার চর এলাকায়। কাজের সন্ধানে সে ঢাকায় যেতে ওই লঞ্চে ওঠে। সন্ধ্যার আগ মুহূর্তে লঞ্চের কয়েকজন স্টাফ তাকে টানা-হেচড়া করে কেবিনের ভেতর নেয়ার চেষ্টা চালায়। এ অবস্থায় বাধ্য হয়ে সে নদীতে লাফিয়ে পড়ে। জেলেরা মেয়েটিকে ভাসতে দেখে উদ্ধার করে তজুমদ্দিন হাসপাতালে এনে ভর্তি করায়। তবে মেয়েটি ঝাঁপ দেয়ার পর তাকে উদ্ধারের জন্য একটি বয়া ফেলা হয়েছে বলে দাবি করেন লঞ্চ স্টাফরা।

ওই লঞ্চ কোম্পানির ভোলা অফিসের স্টাফরা জানান, বিষয়টি তারা ফেসবুকে দেখেছেন। তাদের লঞ্চ স্টাফরা কিশোরিকে যৌন হয়রানি করেছে কিনা তা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি। আজ সোমবার করা হবে বলে জানান সহকারী ম্যানেজার লিটন।

ওই লঞ্চের সুপারভাইজার মো. রুবেল সাংবাদিকদের জানান, তিনি শুনেছেন একটি মেয়ে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করেও না পেয়ে লঞ্চটি ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

তজুমদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা. কবির হোসেন সোহেল জানান, মেয়েটি এখন আগের থেকে ভালো আছে। সে হাতে আঘাত পেয়েছে।