রংপুর শিক্ষাঙ্গন

বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ভাংচুর-ভিসি অবরুদ্ধ

download (1)রংপুর অফিস: চাকুরি স্থায়ী করণ ও বকেয়া বেতনের দাবিতে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারিরা মঙ্গলবার বিকেলে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ ও ভাংচুর চালায় । তারা প্রায় এক ঘন্টা ভিসিকে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা গেছে, ভিসি অধ্যাপক ড. একেএম নুরুন্নবী আজ শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের সাথে পৃথকভাবে বৈঠক করেন। বৈঠকে তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬৭৪ জন শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারির মধ্যে চাকুরি নেই ৩৩৮ জনের। ৩৩৬ জন যাদের চাকুরি রয়েছে তাদের বেতন এসেছে বলে ভিসি জানান। যাদের চাকুরি নেই তাদের বেতন আসেনি। এতে শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারি ভিসির কক্ষ থেকে বেরিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে এবং প্রশাসনিক ভবনে ভাংচুর চালায়। তারা ভিসিকেও অবরুদ্ধে করে রাখে। বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে তারা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রদক্ষিন করে। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, কর্মচারি রশিদুল হক, রাসেল মিয়া, হাফিজুর রহমান তুফান, মাহবুবুর রহমান প্রমুখ। কর্মচারি ইউনিয়নের সভাপতি আতিকুজ্জামান সুমন জানান, আমরা মার্চ, এপ্রিল ও জুন মাস থেকে বেতন পাচ্ছি না। ভিসিকে এব্যাপারে বার বার তাগাদা দেওয়া সত্বেও তিনি বেতন হবে হবে বলে সময়ক্ষেপন করেন। গতকাল তিনি আমাদের সাথে বৈঠক করে জানান, যাদের চাকুরি স্থায়ী শুধু তাদের বেতন দেওয়া হবে । এতে সবাই ক্ষিপ্ত হয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে এবং ভিসিকে এক ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে তাঁর কক্ষে। তিনি জানান, আমাদের চাকুরি স্থায়ী ও বেতন পরিশোধ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। এব্যাপারে ভিসি অ্যধাপক ড. একেএম নুরুন্নবী জানান, শিক্ষক কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের সাথে আলোচনা শেষে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে বিক্ষোভ করেন । তিনি জানান, যাদের চাকুরি রয়েছে তাদের বেতন এসেছে । কিন্তু যাদের চাকুরি নেই তারাও বেতন যাচ্ছেন, এটা সম্ভব নয়। তিনি আরো জানান, যাদের চাকুরি নেই তাদের চাকুরি স্থায়ী করার চেষ্টা চলছে।