ঢাকা রাজনীতি

বিএনপির ৫ নেতাকে কারন দর্শাও নোটিশ, সদর উপজেলা কমিটি বিলুপ্ত

images (4)রুনু মদন নেত্রকোনা প্রতিনিধি:সোমবার দুপুরে নেত্রকোনায় জেলা বিএনপির কোন্দলে একপক্ষের ৫ নেতাকে শোকজ ও সদর উপজেলা কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করেছে আরেকপক্ষ। এই ৫ জন হলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এডভোকেট মাহফুজুল হক,সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল বারী ড্যানী, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মজিবুর রহমান, সহ- ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মনিরুজ্জামান দুদু ও জেলা বিএনপির সদস্য এডভোকেট খোরশেদ আলম মিয়া।

এর প্রতিবাদে বিকালে শহরের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রেসক্লাবে এসে শেষ হয়।

 

জেলা কমিটির সভাপতি আশরাফ উদ্দিন খান ও সাধারন সম্পাদক আবু তাহের তালুকদার স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে নেতাদের শোকজ ও কমিটি বিলুপ্তির বিষয়টি জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঈদের আগে ৬ আগষ্ট জেলা বিএনপির কার্যালয়ে ইফতার মাহফিল আহবান করা হয়। একই সময়ে এই ৫জন নেতা জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মজিবুর রহমানের বাসভবনে জেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নামের ব্যানার ব্যবহার করে পাল্টা ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠান করে সংগঠনের গঠনতন্ত্র ও শৃংখলা পরিপন্থি কাজ করেছেন। এই অভিযোগে কেন তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক ব্যকস্থা নেয়া হবে না তা ৭ দিনের মধ্যে কারন দর্শানোর জন্যে বলা হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, সদর উপজেলা বিএনপির নিস্ক্রীয় ও মেয়াদ উত্তীর্ণ কার্য়করী কমিটি ১৯ আগষ্ট বিলুপ্ত করা হয়। ১৮ আগষ্ট জেলা বিএনপির জরুরি সভায় কমিটি বিলুপ্ত ও ৫জন নেতাকে কারন দর্শাও নোটিশ করার সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের আলোকে সোমবার দুপুরে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মজিবুর রহমান বলেন, সদর উপজেলা কমিটি বিলুপ্ত ও ৫জনকে কারন দর্শাও নোটিশ দেয়ার এখতিয়ার নেই তাদের। আশরাফ উদ্দিন খান ও আবু তাহের তালুকদারকে বিএনপির নেতা কর্মীরা পছন্দ করেনা। জাতীয় পার্টি থেকে আশরাফ উদ্দিন খান বিএনপিতে এসে বিএনপির ঐক্য নষ্ট করছে। নেত্রকোনা -২ আসনে আশরাফ উদ্দিন খানসহ ৫ জনই আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী। নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্যে দলের মধ্যে আশরাফ খান ও আবু তাহের বিবেধ সৃষ্টি করছেন।