অর্থ ও বাণিজ্য কৃষি ঢাকা হটনিউজ স্পেশাল

পিয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ২৫ টাকা

1376744425.হটনিউজ২৪বিডি.কম : ঈদের আগে যে পিয়াজ বিক্রি হয়েছে ৪৫ টাকায়, এক সপ্তাহের ব্যবধানে তা এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭০ থেকে ৭৫ টাকায়। খুচরা বাজারে এ দাম নেয়া হয় বিক্রেতাদের ইচ্ছেমতো। পাইকারি ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, হরতালে পণ্য পরিবহনে সমস্যা হওয়ায় বাজারে পিয়াজের সরবরাহ কমে গেছে।এছাড়া ভারতে দাম বাড়ায় এর প্রভাব বাংলাদেশের বাজারেও পড়েছে। হঠাৎ দাম বাড়ার বিষয়ে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেন, সাধারণত আমরা ভারত থেকে পিয়াজ এনে থাকি। সেখানেই দাম বেড়ে গেছে। ফলে তার একটা প্রভাব পড়েছে আমাদের বাজারে।এছাড়া আমদানি খরচ বেড়ে যাওয়ায় এমনটি হয়েছে বলে তিনি মনে করেন। তবে বিকল্প পদ্ধতিতে এ দাম কমানোর চেষ্টা হচ্ছে বলে জানান মন্ত্রী। অন্যদিকে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ে সহসভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন হঠাৎ করে পিয়াজের দাম বৃদ্ধির বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। জানতে চাইলে কাওরান বাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী মো. রাজ আলী বলেন, বৃহস্পতিবার প্রতি পাল্লায় (পাঁচ কেজি) দেশি পিয়াজ ৩০০ টাকায় বিক্রি হয়। অর্থাৎ কেজিপ্রতি দাম ছিল ৬০ টাকা। একদিন পর গতকাল প্রতি কেজিতে দাম বেড়েছে চার টাকা। আর ইন্ডিয়ান পিয়াজের দাম আরও বেড়েছে। গতকাল তা বিক্রি হয় ৭৫ থেকে ৮০ টাকা কেজিতে।এদিকে খুচরা বাজারে পিয়াজের দাম আরও বাড়ছে। ঈদের আগে যে পিয়াজের দাম ছিল ৪৪ টাকা সে পিয়াজ এখন খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৭৫ টাকায়। আর পাড়া-মহল্লার দোকানে বিক্রি হচ্ছে একেক স্থানে একেক দামে। খুচরা বিক্রেতা মুহসিন জানান, ঈদের ছুটি ও হরতালের কারণে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে দাম বাড়ছে। আমদানিকারক ও পাইকারি ব্যবসয়ীরা জানিয়েছেন, ঈদের পর ভারত থেকে পিয়াজ আমদানি ব্যাপক হারে কমে গেছে। বেশ কিছুদিন ধরে সেখানে পিয়াজের দাম বাড়ায় আমদানিকারকরা বেশি দামে পিয়াজ আমদানি করছেন না। তাই সরবরাহে সঙ্কট দেখা দিয়েছে। ফলে দামেও আসে ব্যাপক তারতম্য। জানা গেছে, দেশে চাহিদা অনুযায়ী উৎপাদন না হওয়ায় প্রতি বছর কয়েক লাখ টন পিয়াজের ঘাটতি থেকে যায়। আর এ ঘাটতি মেটাতে হয় আমদানি করে। দেশে বেশির ভাগ পিয়াজই আমদানি হয় ভারত থেকে। আমদানির্ভরতার এ সুযোগটাই নেন আমদানিকারক ও মধ্যস্বত্বভোগীরা।আমাদের কলকাতা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ভারতে পিয়াজের দাম খুব শিগগিরই সেঞ্চুরি করে ফেলবে বলে মনে করছেন সেখানকার বাজার বিশেষজ্ঞরা। আর এ আশঙ্কাতেই সবার মধ্যে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে। পিয়াজের দামের ঝাঁজে সবার চোখে পানি আসার যোগাড়। পিয়াজের দাম বেড়ে চলেছে সারা ভারতেই। গত কয়েক মাসে পিয়াজের দাম বেড়েছে প্রায় ১৪৫ শতাংশ।1376744425.দিল্লি থেকে কলকাতা, মুম্বই থেকে আগরতলা সব জায়গায় পিয়াজের দাম আকাশছোঁয়া। শহর কলকাতার পাশাপাশি রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে পিয়াজের দাম ৭০ থেকে ৮০ রুপির মধ্যে ওঠানামা করছে। রাজধানী দিল্লিতে পিয়াজের দর সব থেকে চড়া। দিল্লিতে এক কেজি পিয়াজের দাম ৮০ টাকা ছাড়াতে চলেছে। ব্যবসায়ীদের মতে, এবার বৃষ্টির জন্য নাসিকে পিয়াজের ফলন ভাল না হওয়ায় জোগান কম। কোথাও কোথাও আবার অতি বৃষ্টির কারণে পিয়াজ আনা-নেয়ায় সমস্যা হচ্ছে। তাই যোগান না বাড়লে পিয়াজের দাম কমার সম্ভাবনা নেই। ফলে অগ্নিমূল্যের বাজারে নাভিশ্বাস উঠেছে ক্রেতাদের। সরকার অবশ্য পিয়াজের দাম বৃদ্ধি ঠেকাতে রপ্তানি বন্ধ করার পথে না গিয়ে রপ্তানি মূল্য এক ধাক্কায় অনেকটা বাড়িয়ে দিয়েছে। পিয়াজের ন্যূনতম রপ্তানি মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে টনপ্রতি ৬৫০ মার্কিন ডলার। অন্যদিকে বিদেশ থেকে পিয়াজ আমদানির জন্যও নাফেডকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের অন্য রাজ্য থেকে পিয়াজ আমদানি করে দাম স্থিতিশীল রাখার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।