আন্তর্জাতিক খেলা

বিদায়ের দিনে টিকে থাকলেন নাদাল

1376749662.হটনিউজ স্পোর্টস ডেস্ক : বিশ্বের শীর্ষ দুই টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচ ও এন্ডি মারে গত শুক্রবার সিনসিনাতি মাস্টার্স থেকে বিদায় নিয়েছেন। অন্যদিতে রজার ফেদেরারকে হারিয়ে প্রতিযোগিতায় টিকে রয়েছেন রাফায়েল নাদাল। কোয়ার্টার ফাইনালে এই তিন তারকার একসাথে বিদায়ে টুর্নামেন্টের আকর্ষণ অনেকাংশেই কমে গেছে।

বিশ্বের তিন নম্বর খেলোয়াড় নাদাল কোয়ার্টার ফাইনালে ৫-৭, ৬-৪, ৬-৩ গেমে সুইস তারকা ফেদেরারকে পরাজিত করে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছেন। এই নিয়ে ৩১বারের মোকাবেলায় নাদাল ২১টিতে জয়ী হলেন। ২০১৩ সালে হার্ডকোর্টে এখন পর্যন্ত অপরাজিত নাদাল বলেছেন, ‘আমার মুভমেন্ট আজ বেশ ভাল ছিল, অনেক বেশি তীব্রতা নিয়ে আমি খেলেছি। ফিরতি প্রায় প্রতিটি বলই আমি সঠিকভাবে ধরতে পেরেছি। বেসলাইনের নিয়ন্ত্রণ বেশ ভাল ছিল। যা প্রথম সেটে আমি করতে পারিনি। ম্যাচটি বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ছিল। গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে আমি কিছু ভাল শট খেলেছি।’
এদিকে সিনসিনাতি মাস্টার্সের গত পাঁচটি আসরের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মত পরাজিত হলেন ফেদেরার। পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ফেদেরার এই পরাজয়ে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে পাঁচ থেকে সাত নম্বরে নেমে গেলেন। ম্যাচ শেষে হতাশ ফেদেরার বলেন, ম্যাচটিকে ধরে রাখার জন্য পুরো কৃতিত্বই নাদালের, দারুণভাবে ম্যাচে ফিরে এসে বেশ কিছু ভাল শট খেলেছে। অন্যদিকে আমি কিছু বাজে শট খেলে সত্যিই হতাশ হয়েছি। দ্বিতীয় সেটের শেষের দিকে এবং তৃতীয় সেটের শুরুতে আমি আরো ভাল খেলতে পারতাম। কিন্তু আমার কৌশল বেশির ভাগ সময়ই কাজ করেছে। ম্যাচের বেশিরভাগ সার্ভিসই আমি ভাল করেছি। কিন্তু যখনই আমি ভুল করেছি সেই সুযোগগুলো সে নিয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের অবাছাই জন ইসনারের কাছে ৭-৬ (৭/৫), ৩-৬, ৭-৫ গেমে পরাজিত হয়ে সবচেয়ে বেশি হতাশ করেছেন বিশ্বের এক নম্বর খেলোয়াড় নোভাক জকোভিচ। ৯টি এটিপি মাস্টার্স শিরোপার মধ্যে ৮টিতে জয়ী হলেও প্রথমবারের মত জকোভিচের সামনে সুযোগ ছিল প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ক্যারিয়ারে সবকটি মাস্টার্স শিরোপা জয়ের। কিন্তু এই পরাজয়ে তার আরেকটি রেকর্ডের স্বপ্ন ভেঙে গেল।
দুইবারের চ্যাম্পিয়ন বৃটিশ তারকা এন্ডি মারে অবশ্য কোয়ার্টার ফাইন লে চেক প্রজাতন্ত্রের ষষ্ঠ বাছাই টমাস বার্ডিচের সামনে দাঁড়াতেই পারেননি। মারের সেমিফাইনালের স্বপ্ন ভেঙে দিয়ে বার্ডিচ ৬-৩, ৬-৪ গেমের সহজ জয় তুলে নিয়েছেন। এখন মারে ইউএস ওপেনের শিরোপা ধরে রাখার স্বপ্ন নিয়ে নিউ ইয়র্কে পাড়ি জমাবেন। আগামী ২৬ আগস্ট থেকে ফ্ল্যাশিং মিডোতে শুরু হচ্ছে বছরের শেষ গ্র্যান্ড স্ল্যাম। দ্বিতীয় বাছাই মারে পুরো ম্যাচে ১০টি এস মারলেও চারটি ব্রেক পয়েন্টের সুযোগ নষ্ট করেন। মাদ্রিদের ক্লে কোর্টে পরে এই নিয়ে এবারের মৌসুমে দ্বিতীয়বারের মত মারেকে পরাজিত করলেন বার্ডিচ। ম্যাচ শেষে হতাশ মারে বলেছেন, আজকের কোর্টটা দারুনভাবে জীবন্ত ছিল। এখানে বল বেশ বাউন্স করছিল এবং সেকারণেই বল নিয়ন্ত্রণ করা বেশ কঠিন হয়ে পড়েছিল। আমি অনেকগুলো ভুল করেছি। এখন আমাকে নিশ্চিত করতে হকে ইউএস ওপেনে যাতে এত ভুল না হয়।
গতকাল শনিবারের সেমিফাইনালে ইসনার ২০০৯ সালের ইউএস ওপেন জয়ী আর্জেন্টাইন সপ্তম বাছাই হুয়ান মার্টিন ডেল পোত্রোর মুখোমুখি হন। কোয়ার্টার ফাইনালে ডেল পোত্রো ৬-৪, ৩-৬, ৬-১ গেমে রাশিয়ান দিমিত্রি টুরসুনোভকে পরাজিত করে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছেন। বাম কব্জির ব্যথা নিয়েই ডেল পোত্রো এই জয় তুলে নেন।
মহিলাদের কোয়ার্টার ফাইনালে বিশ্বের এক নম্বর তারকা সেরেনা উইলিয়ামস তার আধিপত্য ধরে রেখে ৬-০, ৬-৪ গেমে রোমানিয়ার সিমোনা হালেপকে পরাজিত করেছেন। সেমিফাইনালে সেরেনার প্রতিপক্ষ চাইনিজ পঞ্চম বাছাই লি না। পোল্যান্ডের আজনিয়েস্কা রাদাওয়ানাস্কা দাদার মৃত্যুর কারণে টুর্নামেন্ট থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিলে লি না কোয়ার্টার ফাইনালে তার বিপক্ষে ওয়াকওভার লাভ করেন। এছাড়া অপর দুটি কোয়ার্টার ফাইনালে জয় পেয়েছেন হেলেনা ইয়ানকোভিচ এবং ভিক্টোরিয়া আজরেঙ্কা। বিশ্বের সাবেক এক নম্বর ইয়ানকোভিচ ৬-০, ৬-৪ গেমে ইতালির রবার্তা ভিঞ্চিকে এবং দ্বিতীয় বাছাই ভিক্টোরিয়া আজারেঙ্কা ড্যানিশ দশম বাছাই ক্যারোলিন ওজনিয়াকিকে ৬-৩, ৭-৬ (৭/৫) পরাজিত করে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছেন।