অপরাধ খুলনা

তিন বাংলাদেশী নাগরিককে ফেরত দিয়েছে ভারত

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি (১৭.০৮.১৩): ভারতে অবৈধ অনুপ্রবেশকারি তিন বাংলাদেশী নাগরিককে তিনবছর কারাভোগের পর ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। শনিবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গার জয়নগর সীমান্তে পতাকা বৈঠকের পর তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়। ফেরত আসা বাংলাদেশী নাগরিকরা হলেন, কুলসুম বেগম (১৭), নারগিস খাতুন (১৬) ও কবির হোসেন (১৮)।

চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের দর্শনা ক্যা20121229_1356789770ম্পের কোম্পানি কমান্ডার খোরশেদ আলম জানান, কুমিল্লা জেলার লাকসামের রহমত উল্লাহর মেয়ে কুলসুম বেগম, ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার বাঘাডাঙ্গা গ্রামের মনিরুল ইসলামের ছেলে কবির হোসেন ও চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কুতুবপুর গ্রামের সাইফুল ইসলামের মেয়ে নারগিস বেগম বিভিন্ন সীমান্তপথে প্রায় তিন বছর আগে ভারতে অনুপ্রবেশ করে। তারপর তারা ধরা পড়ে ভারতীয় পুলিশের হাতে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ভারতীয় পুলিশ। তিনজনই প্রায় তিনবছর কারাভোগ করে ভারতের নদীয়া কারাগারে। শনিবার সকালে ভারতীয় পুলিশ এই তিন বাংলাদেশী নাগরিককে নদীয়া জেলার গেদে বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করে। শনিবার বিকেল ৫টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গার জয়নগর সীমান্তের ৭৬ মেইন পিলারের কাছে পতাকা বৈঠকের পর বিএসএফ তিন বাংলাদেশী নাগরিককে ফিরিয়ে দেয় বিজিবির হাতে। পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার ভূমি কর্মকর্তা ফরিদ হোসেন, দামুড়হুদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি-তদন্ত) আব্দুল মালেক, দর্শনা বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার খোরশেদ আলম, দর্শনা ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান। ভারতের পক্ষে ছিলেন গেদে বিএসএফ ক্যাম্পের কমান্ডার এসি রমেশ কুমার। ফেরত আসা বাংলাদেশী নাগরিকদের দামুড়হুদা পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়েছে।

দামুড়হুদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি-তদন্ত) আব্দুল মালেক জানান, ফিরে আসা বাংলাদেশী নাগরিকদের তাদের অভিভাবকদের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হবে।